5,376 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
সম্পাদিত

1 উত্তর

+3 টি পছন্দ
করেছেন (17,789 পয়েন্ট)
পূনঃপ্রদর্শিত করেছেন

না।

চাচাতো, মামাতো এবং ফুফাতো ভাই/বোনের মেয়েকে বিয়ে করা জায়েজ।

দলিল হিসেবে বলা যায়- বিয়ের পূর্বে ফাতিমা (রা.) সম্পর্কে আলী (রা.)-এর চাচাতো ভাইয়ের মেয়ে ছিলেন।


ইসলামিক আইনানুযায়ী একজন অবিবাহিত পুরুষ নিম্নোক্ত মহিলাদের বিয়ে করতে পারবেনা-

  1. মাতা
  2. নিজ কন্যা, নাতনি বা তার পরবর্তী প্রজন্ম।
  3. নিজের বোন, বোনের কন্যা বা তার পরবর্তী প্রজন্ম।
  4. ভাইয়ের কন্যা বা তার পরবর্তী প্রজন্ম।
  5. পিতার বোন
  6. মাতার বোন
এক্ষেত্রে "বোন" বলতে রক্তসম্পর্কিত বোন ছাড়াও দুধবোন এবং সৎবোনদেরও বুঝানো হয়েছে।
করেছেন (10 পয়েন্ট)

আমার অপরাধ ক্ষমা করবেন। শুধু জানতে চাইছি, আপন খালা যদি বিধবা বা তালাকপ্রাপ্তা হন, তখন কি উনার ভরণপোষণ করার সৎ ইচ্ছা থেকে উনার অনুমতি সাপেক্ষে শরীয়া বিধি মোতাবেক বৈবাহিক সম্পর্ক স্থাপন করা যাবে? 

করেছেন (17,789 পয়েন্ট)

না, এটি কোনো পরিস্থিতিতেই জায়েজ নয়। 

আপনার সদিচ্ছা থাকলে বিয়ে না করেই তার দেখাশোনা করতে পারেন... তাছাড়া তাকে অন্য কারো সাথে বিয়ে দেয়াতে বাধা কোথায়?

করেছেন (16 পয়েন্ট)
পরিশিষ্ট হিসেবে এই আয়াত দুটি উল্লেখ করা যেতে পারে।
حُرِّمَتْ عَلَيْكُمْ أُمَّهَاتُكُمْ وَبَنَاتُكُمْ وَأَخَوَاتُكُمْ وَعَمَّاتُكُمْ وَخَالَاتُكُمْ وَبَنَاتُ الْأَخِ وَبَنَاتُ الْأُخْتِ وَأُمَّهَاتُكُمُ 
اللَّاتِي أَرْضَعْنَكُمْ وَأَخَوَاتُكُمْ مِنَ الرَّضَاعَةِ وَأُمَّهَاتُ نِسَائِكُمْ وَرَبَائِبُكُمُ اللَّاتِي فِي حُجُورِكُمْ مِنْ نِسَائِكُمُ اللَّاتِي دَخَلْتُمْ بِهِنَّ فَإِنْ لَمْ تَكُونُوا دَخَلْتُمْ بِهِنَّ فَلَا جُنَاحَ عَلَيْكُمْ وَحَلَائِلُ أَبْنَائِكُمُ الَّذِينَ مِنْ أَصْلَابِكُمْ وَأَنْ تَجْمَعُوا بَيْنَ الْأُخْتَيْنِ إِلَّا مَا قَدْ سَلَفَ ۗ إِنَّ اللَّهَ كَانَ غَفُورًا رَحِيمًا
"নারীদের মধ্যে তোমাদের পিতৃপুরুষ যাদের বিয়ে করেছে,তোমরা তাদের বিয়ে করো না,অতীতে যা হবার হয়েছে,এখন নয়। এটা অশ্লীল,অতিশয় ঘৃণ্য এবং নিকৃষ্ট আচরণ।" (৪:২২) 
তোমাদের জন্য অবৈধ করা হল তোমাদের মা,মেয়ে,বোন,ফুফু বা পিতার বোন,খালা বা মায়ের বোন, ভাই এবং বোনের মেয়ে,দুধ মা, দুধ বোন, শাশুড়ী এবং তোমাদের স্ত্রীদের মধ্যে যার সাথে সহবাস হয়েছে,তার পূর্ব স্বামীর ঔরসে জন্ম নেয়া কন্যা ও যারা তোমার অভিভাবকত্বে আছে। তবে যদি তাদের সাথে সহবাস না হয়ে থাকে, তাতে তোমাদের কোন অপরাধ নেই এবং তোমাদের জন্য নিষিদ্ধ তোমাদের ঔরসজাত পুত্রের স্ত্রী ও দুই বোনকে একসঙ্গে বিয়ে করা। অতীতে যা হবার হয়েছে, আল্লাহ ক্ষমাশীল ও দয়াময়।" (৪:২৩) যেসব মহিলাকে বিয়ে করা হারাম এই দুই আয়াতে তাদের তালিকা দেয়া হয়েছে। এই সব মহিলাদের বিয়ে করা মানব প্রকৃতির সাথে সঙ্গতিপূর্ণ নয়। সামগ্রীকভাবে তিনটি ক্ষেত্রে বিয়ে বৈধ নয়। 
প্রথমত : রক্তের সম্পর্কের অধিকারী মহিলারা। যেমন-মা ,বোন, কন্যা, ফুফু, খালা, ভাগনী ও ভাইঝিকে বিয়ে করা হারাম। 
দ্বিতীয়ত : বৈবাহিক সম্পর্কের মাধ্যমে সৃষ্ট বাধার ক্ষেত্রে যেমন স্ত্রীর মা, বোন ও স্ত্রীর পূর্ববর্তী স্বামীর ঔরসে জন্ম নেয়া কন্যাকে বিয়ে করা হারাম।
তৃতীয়ত : দুধের সম্পর্ক যেমন, দুধ মা ও দুধ বোনকে বিয়ে করা হারাম। 


টি উত্তর
২১ জানুয়ারি ২০১৯ "ক্যারিয়ার" বিভাগে উত্তর দিয়েছেন Ariful (৬৩৭৩ পয়েন্ট )
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
26 অগাস্ট 2014 "প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন emonbit (8 পয়েন্ট)
0 টি উত্তর
01 মার্চ "হাদিস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন CHOWDHURUY (8 পয়েন্ট)
2 টি উত্তর

288,997 টি প্রশ্ন

374,507 টি উত্তর

113,295 টি মন্তব্য

157,545 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...