3,937 জন দেখেছেন
"প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন (16 পয়েন্ট)

2 উত্তর

0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (2,489 পয়েন্ট)
ইদানীং হুট করে প্রেমের সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার হার মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে গিয়েছে। অনেক সময় এই সম্পর্কগুলো ভাঙার পেছনে কারণ থাকে এবং অনেক সময় থাকে না। এই ধরণের ঘটনা ঘটার পেছনে অনেক বড় কারণ হলো ভালোবাসার মূল্য কমে যাওয়া। ইদানীংকার ঠুনকো হয়ে যাওয়া ভালোবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে শুধু কষ্ট পাওয়া ছাড়া অন্য কোনো কিছুই হয় না।
যারা এই সম্পর্ক ভাঙনের জন্য দায়ী তাদের তেমন কষ্ট না হলেও যারা মন থেকে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন তাদের জন্য সম্পর্ক ভাঙার কষ্টটা অনেক বেশীই হয়। ভুলে যাওয়া অনেক কঠিন হয়ে দাঁড়ায়। তাদের জন্য পৃথিবীটা থমকে দাঁড়ায় বলে মনে হয়। জীবনে এগিয়ে যাওয়ার পথটা যেন বন্ধ হয়ে যায়। কিন্তু এভাবে তো চলা সম্ভব নয়। যতো দ্রুত সম্ভব অতীত ভুলে যেয়ে জীবনে এগিয়ে যাওয়াই উচিৎ। চলুন তবে দেখে নেয়া যাক এই অবস্থা কাটিয়ে উঠার জন্য কিছু উপায়।

১.পরিবারের সাথে কথাটি শেয়ার করুন: অনেকে ভয় পান এই ধরনের কথা নিজের পরিবারের সাথে শেয়ার করতে। ভাবেন পরিবারের সদস্যরা খারাপ ভাবে নেবেন। কিন্তু আপনি নিজের পরিবারের চাইতে বেশি সাপোর্ট অন্য কোথাও পাবেন না এই অবস্থায়। আপনার সাথে তারাই সব চাইতে বেশি সময় থাকতে পারবেন। তাদের আনন্দময় সঙ্গ আপনার অতীত ভুলতে অনেক বেশি সহায়তা করবে। তাই পরিবারের সবার সাথে না হোক অন্তত সব চেয়ে কাছের মানুষটির সাথে শেয়ার করুন মনের কথা।


২.বন্ধুবান্ধবের সাথে সময় কাটান: বন্ধুবান্ধবের সাথে যতোটা সম্ভব বেশি সময় কাটানোর চেষ্টা করুন। তবে খেয়াল রাখবেন যে বন্ধুটি আপনাকে খোঁচামূলক কথা শোনাবে এবং অযথা কথা বলবে তার থকে দূরে থাকবেন এই সময়। যে আপনার আসল বন্ধু হবে তিনি আপনাকে সময় দেবেন এবং আপনার সাথে সেধরনেরই ব্যবহার করবেন যাতে আপনি আপনার প্রাক্তন প্রেমিক/প্রেমিকা সম্পর্কে কিছু মাথায় না আনেন। এভাবে আপনি সহজেই ভুলে যেতে পারেবন তাকে।


৩.নিজেকে ব্যস্ত রাখুন পছন্দের কোনো কাজে: আপনার যা করতে ভালো লাগে সে কাজে মনোনিবেশ করুন। নিজেকে ব্যস্ত রাখুন। আপনি যতো ব্যস্ত থাকবেন অতীত আপনার মন থেকে ততো দ্রুত মুছে যাবে। যখনই তার কথা মনে পড়বে তখনই আপনি যদি আপনার মনোযোগ সরিয়ে নিতে পারেন তা আপনার জন্যই ভালো হবে।


৪.যোগাযোগের চেষ্টা করবেন না বা কোনো যোগাযোগ রাখবেন না: অনেকে আছেন মনে করেন সম্পর্ক ভাঙার পরও যোগাযোগ রাখতে পারলে কিংবা যোগাযোগ থাকলে হয়তো ভবিষ্যতে সম্পর্ক পুনরায় ঠিক হয়ে যেতে পারে। কিন্তু আপনি কেন এই হয়তোর আশায় বসে থাকবেন। আপনার প্রাক্তন প্রেমিক/প্রেমিকা হয়তো নতুন কারো সাথে জড়িয়ে পরবেন এবং এর পরও আপনি আশায় বসে থাকবেন তা তো সম্ভব নয়। যতদিন আপনাদের মধ্যে যোগাযোগ থাকবে ততোদিন আপনি তাকে ভুলতে পারবেন এবং নিজের কষ্ট বাড়িয়েই যাবেন। এর থেকে যোগাযোগ একেবারে বন্ধ করে দিন। মনে রাখবেন ‘চোখের আড়াল হলে, মনে আড়াল হয়’।


৫.নতুন কারো সাথে কথা বলুন: প্রত্যেকটি মানুষেরই দ্বিতীয় একটি সুযোগ পাওয়ার অধিকার রয়েছে। আপনি অতীত নিয়ে ধরে বসে থাকলে, এবং আপনার প্রাক্তন প্রেমিক/প্রেমিকার আশায় থাকলে আপনার নিজেরই ক্ষতি। আপনি যদি তাকে ভুলতে চান তবে সব চাইতে সহজ একটি উপায় হলো নতুন কাউকে নিয়ে চিন্তা করা। আপনার চিন্তায় যখন নতুন একজন আসবেন তখন প্রাক্তন প্রেমিক/প্রেমিকাকে আপনি আপনাআপনি ভুলে যাবেন।
0 পছন্দ 0 জনের অপছন্দ
উত্তর প্রদান করেছেন (4,261 পয়েন্ট)
১. ঘুমান :

ঘুমের বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না। একজন সুখী মানুষই পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমোতে পারেন। আপনি যখন প্রেমিক/প্রেমিকা ছাড়া ঝামেলামুক্ত জীবন যাপন করবেন তখনই আপনি ভালোভাবে ঘুমোতে পারবেন। আর ঘুমই আপনাকে এনে দিতে পারে অনাবিল সুখ যেটি একজন প্রেমিক/প্রেমিকা কখনোই এনে দিতে পারবে না।
২. খাবার খান :

অনেক সুখী মানুষই আছেন যারা খেতে অনেক বেশি ভালোবাসেন। এছাড়া খাওয়া দাওয়া করলে মনও অনেক বেশি ভালো থাকে। এ কারণে আপনি যখন যা ইচ্ছা খেতে পারবেন তখন আপনার একেবারেই মনে হবে না যে আপনার জীবনে একজন প্রেমিক/প্রেমিকা থাকা খুব জরুরি।
৩. বাহিরে কাজ করুন :

আপনি যখন জীবনের প্রয়োজনেই বাহিরে বাহিরে কাজ করবেন তখন আপনি অনেক বেশি ব্যস্ত থাকবেন। এর ফলে আপনার মনে এই চিন্তা কখনোই বাসা বাঁধার সুযোগই পাবে না যে আপনার একটা প্রেমিক/প্রেমিকা থাকা দরকার। এতে করে জীবন যুদ্ধে আপনি আরও অনেক বেশি এগিয়ে যাবেন এবং জীবনে একজন সফল মানুষ হতে পারবেন।
৪. ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন :

একজন প্রেমিক/প্রেমিকা কখনোই আপনার স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়। কেননা একটা সম্পর্কে অনেক ধরনের ঝামেলা হতে পারে যার কারণে আপনার স্বাস্থ্য ভেঙ্গে যেতে পারে। এ কারণে নিজের স্বাস্থবিধি মেনে চলুন দেখবেন মনেই হবে না যে আপনার জীবনে প্রেমিক/প্রেমিকা থাকা জরুরি।
৫. উচ্চস্বরে গান গেয়ে উঠুন :

বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক গবেষণাতে দেখা গেছে যে আপনি যদি গলা ছেড়ে উচ্চস্বরে গান গেয়ে থাকেন তাহলে আপনি মানসিকভাবে অনেক প্রশান্তি পাবেন। আপনি অনেক প্রফুল্ল থাকবেন। এ কারণে যতটা সম্ভব উচ্চস্বরে গান গেয়ে উঠুন দেখবেন আপনার কখনোই একা লাগবে না।
৬. নাচুন :

নাচলে শরীর ও মন দুই অনেক ভালো থাকে। প্রতিদিন পছন্দমত গান চালিয়ে মনের আনন্দে নাচুন দেখবেন আপনি অনেকটা প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছেন। ফলে আপনার প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয় তা ফুরিয়ে যাবে।
৭. ফ্যান্টাসি সাহিত্য পড়ুন :

ফ্যান্টাসি বিষয়টিই মানুষকে হাসিয়ে তোলে এবং মানসিকভাবে সবসময় সতেজ রাখে। এ কারণে ফ্যান্টাসি বিভিন্ন ধরনের কবিতা, গল্প, উপন্যাস জাতীয় সাহিত্য পড়–ন। দেখবেন আপনি বেশ প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছেন। এর ফলে আপনার জীবন থেকে প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয়তাও ফুরিয়ে যাবে।
৮. সুখী সময় পার করুন :

প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয়তা নি:শেষের জন্য আপনি আপনার সময়গুলোকে মজা করে কাটিয়ে দিন। এক্ষেত্রে আপনি বিভিন্ন ধরনের মজা করতে পারেন। বন্ধুদের সাথে মজা করতে পারেন। মজার কোনো মুভি দেখতে পারেন।
৯. অনেক বেশি ভ্রমণ করুন :

আপনি যদি আপনার কাজের ফাঁকে ফাঁকে অনেক বেশি ভ্রমণ করেন আপনার সময়গুলো ভিন্নতার সাথে পার হবে। ফলে আপনার জীবনে বিষণœতা একেবারেই আসবে না। এতে করে আপনার কখনোই মনে হবে না যে আপনার একজন প্রেমিক/প্রেমিকা থাকা প্রয়োজন ছিল।
১০. নতুন নতুন বিষয় আবিষ্কার করুন :

প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয়তা তখনই ফুরিয়ে যাবে যখন আপনি আপনার মেধাকে কাজে লাগিয়ে নতুন নতুন বিষয় আবিষ্কার করতে পারবেন। নতুন বিষয়ে মনোযোগ দিলে আপনার সময় খুব ভালোভাবে পার হয়ে যাবে।
১১. পুতুলের সাথে ঘুমান :

আপনি যদি পুতুলকে পাশে নিয়ে ঘুমান তাহলে আপনার একা মনে হবে না। এর ফলেও আপনি প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয়তা বোধ করবেন না একেবারেই।
১২. কেনাকাটা করুন :

নারীরা এমনিতেই অনেক বেশি শপিং করতে ভালোবাসেন। এ কারণে আপনিও বেশি বেশি করে শপিং করুন। এতে করে আপনার মন কখনই খারাপ থাকবে না। ফলে আপনি প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রযোজনীয়তা বোধ করা থেকে বিরত থাকবেন।
১৩. পরিবারের সাথে বেশি করে সময় কাটান :

পরিবার এমন একটি জায়গা যেখানে আপনার কখনোই মন খারাপ হবে না। এ কারণে আপনি যতটা বেশি পরিবারের সাথে সময় ব্যয় করবেন ততটা বেশি আপনি অনুভব করতে পারবেন যে জীবনে প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয়তা একেবারেই নেই।
১৪. ক্যারিয়ারে গুরুত্ব দিন :

আপনি যখন আপনার ক্যারিয়ার তৈরিতে বেশি মনোযোগ দেবেন তখন স্বাভাবিকভাবেই আপনার সমস্ত সময় পার হবে এর পেছনেই। ফলে আপনার মনে এই চিন্তা আসার সময়ই হবে না যে প্রেমিক/প্রেমিকা জাতীয় কিছু একটা আপনার জীবনে থাকা প্রয়োজন।
১৫. স্বাধীনতাকে উপভোগ করুন :

সকলেই বিশ্বাস করেন যে একটা সম্পর্কে জড়ালে তার সমস্ত স্বাধীনতা নষ্ট হয়ে যায়। এ কারণে আপনি এখন থেকেই আপনার স্বাধীনতাকে উপভোগ করুন তাহলে বিন্দু পরিমাণ সময়ও আপনার মনে হবে না যে আপনার একজন প্রেমিক/প্রেমিকা থাকা দরকার। বরং আপনার জীবন থেকে প্রেমিক/প্রেমিকাের প্রয়োজনীয়তা ফুরিয়ে যাবে।
closeWe

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

5 টি উত্তর
26 ডিসেম্বর 2017 "প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর
09 জুন "বাংলাদেশ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন محمد علي (10 পয়েন্ট)
1 উত্তর
06 এপ্রিল 2014 "বাংলাদেশ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আহমেদ বিডি (2,442 পয়েন্ট)
1 উত্তর
29 মার্চ 2013 "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন আরিফুল (6,528 পয়েন্ট)
1 উত্তর

246,086 টি প্রশ্ন

318,034 টি উত্তর

90,229 টি মন্তব্য

126,585 জন নিবন্ধিত সদস্য



বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
closeWe
  1. হিরোস অব এইটিন

    775 পয়েন্টস

  2. Sheikh Lemon

    702 পয়েন্টস

  3. হাফিজ রাহমান

    636 পয়েন্টস

  4. Arafat Hossain Mizan

    541 পয়েন্টস

  5. allahorgolam

    496 পয়েন্টস

* বিস্ময়ে প্রকাশিত সকল প্রশ্ন বা উত্তরের দায়ভার একান্তই ব্যবহারকারীর নিজের, এক্ষেত্রে কোন প্রশ্নোত্তর কোনভাবেই বিস্ময় এর মতামত নয়।
...