বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
42 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (1,093 পয়েন্ট)

2 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (8,859 পয়েন্ট)
হারাম টাকা ১ টাকা খেলে ৪০ দিন নামাজ হবে না একথা সত্যি নয়।

অনুরুপ হাদিস হচ্ছে, বান্দার পেটে যদি হারাম এক লোকমা খাবারও প্রবেশ করে, তাহলে চল্লিশ দিন পর্যন্ত তার আমল কবুল হয় না।

এটি সহিহ হাদিস নয়, বানোয়াট একটি হাদিস। এটি একেবারেই জাল, মিথ্যা হাদিস।

হযরত ইবনে আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে এ আয়াত, হে মানব মণ্ডলী, পৃথিবীর হালাল ও পবিত্র বস্তু- সামগ্রী ভক্ষণ কর। (সূরা বাকারাঃ ১৬৮)

আয়াতটি তিলাওয়াত করা হল। তখন সাদ বিন আবী ওয়াক্কাস (রাঃ) দাঁড়ালেন এবং বললেন, হে আল্লাহর রাসূল! আপনি আমার জন্য দুআ করুন যেন আল্লাহ আমাকে মুস্তাজাবুদ দাওয়া বানিয়ে দেন।

তখন নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, হে সাদ! তুমি তোমার খাবারকে পবিত্র রাখো, 'হালাল ভক্ষণ কর' তুমি মুস্তাজাবুত দাওয়া হয়ে যাবে। যে সত্তার হাতে মুহাম্মদ (সাঃ) এর প্রাণ তার কসম! নিশ্চয় কোন বান্দার পেটে যদি হারাম এক লোকমা খাবারও প্রবেশ করে, তাহলে চল্লিশ দিন পর্যন্ত তার আমল কবুল হয় না। আর ব্যক্তির যে গোস্ত পিণ্ড হারাম সম্পদ বা সুদের টাকায় বৃদ্ধি হয়েছে, তার জন্য জাহান্নামই উত্তম। (আলমুজামুল আওসাত, হাদীস নং ৬৪৯৫, আততারগীব ওয়াত তারহীব, হাদীস নং২৬৬০) হাদীসটি নিতান্ত দুর্বল।

কিন্তু সতর্কতা হিসেবে উক্ত হাদীস অনুপাতে সদা সজাগ থাকা উচিত। যেন কোন মতেই কারো পেটে হারাম খাদ্য প্রবেশ না করে।
0 টি পছন্দ
করেছেন (1,423 পয়েন্ট)
ﻋَﻦِ ﺍﺑْﻦِ ﻋَﺒَّﺎﺱٍ ﻗَﺎﻝَ : ﺗُﻠِﻴَﺖْ ﻫَﺬِﻩِ ﺍﻟْﺂﻳَﺔُ ﻋِﻨْﺪَ ﺭَﺳُﻮﻝِ ﺍﻟﻠَّﻪِ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ : } ﻳَﺎ ﺃَﻳُّﻬَﺎ ﺍﻟﻨَّﺎﺱُ ﻛُﻠُﻮﺍ ﻣِﻤَّﺎ ﻓِﻲ ﺍﻟْﺄَﺭْﺽِ ﺣَﻠَﺎﻟًﺎ ﻃَﻴِّﺒًﺎ { ‏[ ﺍﻟﺒﻘﺮﺓ : 168 ‏] ﻓَﻘَﺎﻡَ ﺳَﻌْﺪُ ﺑْﻦُ ﺃَﺑِﻲ ﻭَﻗَّﺎﺹٍ، ﻓَﻘَﺎﻝَ : ﻳَﺎ ﺭَﺳُﻮﻝَ ﺍﻟﻠَّﻪِ، ﺍﺩْﻉُ ﺍﻟﻠَّﻪَ ﺃَﻥْ ﻳَﺠْﻌَﻠَﻨِﻲ ﻣُﺴْﺘَﺠَﺎﺏَ ﺍﻟﺪَّﻋْﻮَﺓِ، ﻓَﻘَﺎﻝَ ﻟَﻪُ ﺍﻟﻨَّﺒِﻲُّ ﺻَﻠَّﻰ ﺍﻟﻠﻪُ ﻋَﻠَﻴْﻪِ ﻭَﺳَﻠَّﻢَ : ‏« ﻳَﺎ ﺳَﻌْﺪُ ﺃَﻃِﺐْ ﻣَﻄْﻌَﻤَﻚَ ﺗَﻜُﻦْ ﻣُﺴْﺘَﺠَﺎﺏَ ﺍﻟﺪَّﻋْﻮَﺓِ، ﻭَﺍﻟَّﺬِﻱ ﻧَﻔْﺲُ ﻣُﺤَﻤَّﺪٍ ﺑِﻴَﺪِﻩِ، ﺇِﻥَّ ﺍﻟْﻌَﺒْﺪَ ﻟَﻴَﻘْﺬِﻑُ ﺍﻟﻠُّﻘْﻤَﺔَ ﺍﻟْﺤَﺮَﺍﻡَ ﻓِﻲ ﺟَﻮْﻓِﻪِ ﻣَﺎ ﻳُﺘَﻘَﺒَّﻞُ ﻣِﻨْﻪُ ﻋَﻤَﻞَ ﺃَﺭْﺑَﻌِﻴﻦَ ﻳَﻮْﻣًﺎ، ﻭَﺃَﻳُّﻤَﺎ ﻋَﺒْﺪٍ ﻧَﺒَﺖَ ﻟَﺤْﻤُﻪُ ﻣِﻦَ ﺍﻟﺴُّﺤْﺖِ ﻭَﺍﻟﺮِّﺑَﺎ ﻓَﺎﻟﻨَّﺎﺭُ ﺃَﻭْﻟَﻰ ﺑِﻪِ

হযরত ইবনে আব্বাস রাঃ থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের কাছে এ আয়াত “হে মানব মণ্ডলী, পৃথিবীর হালাল ও পবিত্র বস্তু-সামগ্রী ভক্ষণ কর।” [সূরা বাকারা-১৬৮] আয়াতটি তিলাওয়াত করা হল। তখন সাদ বিন আবী ওয়াক্কাস রাঃ দাঁড়ালেন এবং বললেন: হে আল্লাহ রাসূল!আপনি আমার জন্য দুআ করুন যেন আল্লাহ আমাকে মুস্তাজাবুদ দাওয়া [দুআ করলে সাথে সাথে কবুল হয় এমন] বানিয়ে দেন। তখন নবীজী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, হে সাদ! তুমি তোমার খাবারকে পবিত্র রাখো,[হালাল ভক্ষণ কর] তুমি মুস্তাজাবুত দাওয়া হয়ে যাবে। যে সত্তার হাতে মুহাম্মদ [সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম] এর প্রাণ তার কসম! নিশ্চয় কোন বান্দার পেটে যদি হারাম এক লোকমা খাবারও প্রবেশ করে, তাহলে চল্লিশ দিন পর্যন্ত তার আমল কবুল হয় না। আর ব্যক্তির যে গোস্ত পিণ্ড হারাম সম্পদ বা সুদের টাকায় বৃদ্ধি হয়েছে, তার জন্য জাহান্নামই উত্তম। [আলমুজামুল আওসাত, হাদীস নং-৬৪৯৫, আততারগীব ওয়াত তারহীব, হাদীস নং-২৬৬০]

হাদীসটি নিতান্ত দুর্বল।

কিন্তু সতর্কতা হিসেবে উক্ত হাদীস অনুপাতে সদা সজাগ থাকা উচিত। যেন কোনমতেই কারো পেটে হারাম খাদ্য প্রবেশ না করে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
23 অক্টোবর 2017 "যৌন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর

330,617 টি প্রশ্ন

421,333 টি উত্তর

130,851 টি মন্তব্য

180,833 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...