বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
21 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
এটি কারণে হয় কিভাব ভাঙ্গ কপাল ভালো হবে    

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (3,030 পয়েন্ট)
নামাজ পড়ুন আর আল্লাহর কাছে দোয়া করুন। আল্লাহ আপনাকে অবশ্যই ভাল কিছু দিবেন। আর ধৈর্য ধারণ করুন।
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,082 পয়েন্ট)

একটা কথা মনে রাখবেন-আল্লাহ কাউকে এত বড় বোঝা দেন না, যা সে বহন করতে পারে না। সূরা বাকারার আয়াতটা মনে আছে? “লায়ুকাল্লিফু-ল্লাহু নাফসান ইল্লা উস‘আহা” — আল্লাহ কারও মাথার উপর তার সাধ্যে কুলোবে না এমন বোঝা চাপিয়ে দেন না। (২:২৮৬)

কিছু কিছু সময় এমন মনে হয়, আর পারব না। এত কষ্ট আর সহ্য করতে পারব না। অনেকে তো কষ্ট সহ্য করতে না পেরে জীবনও দিয়ে বসেন। অনেকে আবার ভাঙচুর করে বসেন। খেলাধুলায় প্রিয় দলের হারে এরকম কত ঘটনার খবর পত্রিকায় আসে।

যাহোক, উপরের আয়াতটা যদি মাথায় থাকে, তাহলে বুঝবেন যে, যত বড় কষ্টই হোক না কেন, ওটা সহ্য করার মতো যথেষ্ট ক্ষমতা আপনার আছে। আমার আপনার কথা রদবদল হতে পারে। কিন্তু আল্লাহর কথার কখনো কোনো রদবদল হয় না। তিনি যখন বলেছেন, তিনি আমাদের উপর এমন কোনো বোঝা চাপান না, যা আমরা সহ্য করতে পারব না, তাহলে তা-ই সই। আমার মধ্যে ঐ কষ্ট সহ্য করার সামর্থ্য আলবৎ আছে।

আপনি যখন এভাবে আপনার মনটাকে ঠিক করে নেবেন, তখন দেখবেন, মুহূর্তের মধ্যে মন শান্ত হয়ে যাবে।

কষ্টের খবর বা ঘটনায় কষ্ট তো লাগবেই, কিন্তু সেটা যেন আমাদেরকে শেষ করে না দেয়। কারণ…

কষ্টের পর স্বস্তি আছে

“কষ্টের পর অবশ্যই স্বস্তি আছে। আবার শোনো, কষ্টের পর অবশ্যই স্বস্তি আছে।” (৯৪:৫)

একবার না, সূরা আল-ইনশিরায় আল্লাহ কথাটা পরপর দুবার বলেছেন। আমরা কখন কোনো কথা দুবার বলি বলেন তো?

শুধু দুবারই না, দুবারই বললেন, “অবশ্যই” আছে। আরবিতে “ইন্না”। মানে আছেই আছে।

উপরে একবার বলেছি, আমাদের কথার ঠিকঠিকানা না-ই থাকতে পারে, কিন্তু আল্লাহর কথার কোনো হেরফের হয় না কখনো। কাজেই তিনি যখন বলেছেন কষ্টের সাথে স্বস্তি আছেই আছে, দুনিয়ার আর কোনো ওষুধ আমার এই কষ্ট উধাও করতে পারবে না।ভাবুন......

সবকিছুর নিয়ন্ত্রণ আল্লাহর হাতে, আপনার হাতে না

মানুষের মনে হতাশা কোথা থেকে আসে জানেন? অসহায়ত্ব থেকে। আমি যেভাবে সবকিছু ঠিক করেছিলাম সেভাবে হলো না। সবকিছু আমার হাতছাড়া হয়ে যাচ্ছে। দিনকেদিন পরিস্থিতি খারাপের দিকেই যাচ্ছে। আমি কিছুই করতে পারছি না। এভাবে মানুষ একসময় সবকিছুর আশা ছেড়ে দেয়। আমি কিছু পারলাম না। আমাকে দিয়ে কিছু হলো না। এইসব আত্মঘাতী চিন্তাগুলো বাড়তে বাড়তে হতাশায় রূপ নেয়।

আচ্ছা, আমাকে একটা কথা বলেন তো, পৃথিবীর কোন জিনিসটার নিয়ন্ত্রণ আপনার হাতে? সবকিছুই তো আল্লাহর হাতে। আল্লাহই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করছেন। তাহলে আপনি কেন খামোকা নিজের অক্ষমতা নিয়ে আক্ষেপ করে করে নিজের বারোটা বাজাচ্ছেন?

একটু থেমে চিন্তা করুন: চারপাশের পরিস্থিতি কোনোকালেই আপনার নিয়ন্ত্রণে ছিল না। যাঁর হাতে এগুলোর নিয়ন্ত্রণ তিনিই সেরা পরিকল্পনাকারী। আর তাঁর চেয়ে বেশি কেউ আপনাকে ভালোও বাসে না।

কাজেই সবকিছু আল্লাহর উপর ছেড়ে দিন। দেখবেন, কী নির্ভার লাগছে!তারপর....

নিজের সেরাটা ঢেলে বাকিটা আল্লাহর কাছে ছেড়ে দিন

একটা জায়গায় যেয়ে আমরা সবাই বাধা। কাচ্চি বিরিয়ানী বানানোর সব আয়োজন সম্পন্ন করে চুলোয় তুলে দেওয়ার পর আপনার কিন্তু আর কিছু করার নেই। এখন যা হওয়ার ওটা আল্লাহর ইচ্ছায় উপকরণগুলো নিজেরাই করবে। ওষুধ খাওয়ার পর আপনি কি ওষুধকে বলে দিতে পারেন, কী কী করতে হবে? ওষুধ তার নিজগুণেই করে। যখন আল্লাহ চান না, তখন সেই ওষুধের বাবারও কিছু করার থাকে না। একই ক্যানসার অসুখ থেকে যুবরাজ সিংরা বেঁচে আসে, আবার হুমায়ূন আহমেদরা মারা যায়। আমার আপনার কী করার আছে এখানে?

একটা সীমা পর্যন্ত আমরা কিছু করতে পারি। আমাদের দায়িত্বটুকু পালন করতে পারি।

আমাদের কাজকর্ম আমাদের হাতে, কিন্তু এর ফলে কী হবে সেটা কস্মিনকালেও আমাদের হাতে ছিল না।

আপনার আমার কথা বাদ দেন, খোদ আল্লাহর নাবিদেরও তাদের কাজের ফলাফল কী হবে সেটার নিয়ন্ত্রণ তাদের হাতে ছিল না।

অথএব-আল্লাহ আপনাকে যা দিয়েছে তা নিয়ে কৃতজ্ঞ থাকুন

আর হতাশ অবস্থায় এই দু‘আ পড়ুন-

হজরত আনাস রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম যখন কোনো দুঃখ-কষ্ট বা চিন্তা ও অস্থিরতা পড়তেন তখন বলতেন-يَا حَيُّ يَا قَيُّوْمُ بِرَحْمَتِكَ أَسْتَغِيْثُউচ্চারণ : ইয়া- হাইয়ু ইয়া- ক্বাইয়ূ-মু বিরাহমাতিকা আস্তাগিছ। অর্থ : ‘হে চিরঞ্জীব! হে চিরস্থায়ী! আপনার রহমতের মাধ্যমে আপনার নিকটে সাহায্য চাই।’ (তিরমিজি, মুসতাদরেকে হাকেম, মিশকাত)সুতরাং, আল্লাহ তাআলা এ দোয়ার বরকতে আপনাকে চিন্তা পেরেশানি থেকে রক্ষা করবেন ইনশাআল্লাহ ।


সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

332,137 টি প্রশ্ন

423,034 টি উত্তর

131,426 টি মন্তব্য

181,274 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...