বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
104 জন দেখেছেন
"প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে করেছেন (141 পয়েন্ট)

2 উত্তর

+3 টি পছন্দ
করেছেন (3,025 পয়েন্ট)

আপনি একজন প্রাপ্তবয়স্ক পুরুষ ,সাধারণত একজন পুরুষ ১৫ বছরেই প্রাপ্তবয়স্ক হয়ে যায়৷"বিয়ে"ব্যক্তির শারীরিক, মানসিক ও আর্থিক অবস্থার উপর নির্ভর করে বিয়ের হুকুম। তাই সকলের ক্ষেত্রে বিয়ের হুকুম এক রকম নয়; বরং ব্যক্তিভেদে বিয়ে ফরজ, ওয়াজিব, সুন্নাতে মুয়াক্কাদা, মুবাহ, মাকরূহ ও হারাম বলে বিবেচিত হয়। ব্যক্তির জন্য বিয়ে ফরজ হয় চার শর্তে। যা এখানে তুলে ধরা হলো-১. যে ব্যক্তি বিয়ে না করলে ব্যভিচারে লিপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল থাকে।২. ঐ ব্যক্তির জন্য বিয়ে ফরজ যে, ব্যভিচার থেকে বাঁচার জন্য রোজা রাখতেও অক্ষম।৩. যে ব্যক্তির বাঁদী গ্রহণেরও সুযোগ নেই।৪. সর্বোপরি যে ব্যক্তি বৈধ পন্থায় স্ত্রীর মোহর ও ভরণ-পোষণে ব্যয় করতে সক্ষম। এমন ব্যক্তির জন্যে বিয়ে করা ফরজ।সুতরাং আপনি যদি এ চারটি শর্তের মধ্যে পড়েন আপনার জন্য  বিয়ে করে নেওয়া উচিৎ!

অন্যথায়-আমাদের রাষ্ট্রীয় আয়ন অনুযায়ী ২১ বছরের পর বিয়ে করুন!এতে শয়ীরতও আইন দুটিই মান্য করা হবে৷ ধন্যবাদ....


+2 টি পছন্দ
করেছেন (7,435 পয়েন্ট)
আপনি যেহেতু ছেলে তাই ২১ বছরের আগে বিবাহ করা ঠিক হবে না। বাংলাদেশ সংবিধান অনুযায়ী আপনাকে ২১ বছর বয়স হতে হবে। আর এই বয়সে ছেলেদের বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ না হওয়াই উত্তম।
করেছেন (141 পয়েন্ট)
ধন্যবাদ ভাইয়া 

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

4 টি উত্তর
05 সেপ্টেম্বর "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Sabbir rahman abir (141 পয়েন্ট)
1 উত্তর
27 অগাস্ট "কাজী নজরুল ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Sabbir rahman abir (141 পয়েন্ট)

330,283 টি প্রশ্ন

421,033 টি উত্তর

130,750 টি মন্তব্য

180,674 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...