বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
59 জন দেখেছেন
"নিত্য ঝুট ঝামেলা" বিভাগে করেছেন (18 পয়েন্ট)

3 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (28 পয়েন্ট)
ধন্যবাদ সম্মানিত ভাইকে প্রশ্ন করার জন্য। আপনি কোরআনের এই দোয়টি পাঠ করুন“ রাব্বি যিদনী ইলমা” হে আল্লাহ তুমি আমার জ্ঞান বৃদ্ধি করে দাও। ইনশাআল্লাহ ভাল ফল পাবেন। সেই সাথে সর্বপ্রকার অন্যায় অপরাধ থেকে নিজেকে বিরত রাখুন।ইসলাম অনুযায়ী চলার চেষ্টা করুন। আল্লাহ তাওফিক দিন। আমীন।
0 টি পছন্দ
করেছেন (1,128 পয়েন্ট)
দঃুখিত আমি আপনাকে কোন ইসলামিক উপায় দিতে পারলাম না|আপনি প্রতিদিন বাদাম ৫ টি করে খাবেন এতে স্মৃতিশক্তি বাড়বে|আশা করি ভাল ফল পাবেন|
0 টি পছন্দ
করেছেন (3,082 পয়েন্ট)

প্রিয় বোন! স্মৃতি শক্তি বাড়ার হয়তো অনেক উপায় আছে -তার মধ্য থেকে আমি "আমাদের নবী সাঃ" এর বর্ণিত কিছু উপায় আলোচনা করছি!স্মৃতি শক্তি বাড়ার জন্য আপনাকে সর্বপ্রথম যা করতে হবে,তা হলো-

পাপ থেকে দূরে থাকাঃ প্রতিনিয়ত পাপ করে যাওয়ার একটি প্রভাব হচ্ছে দুর্বল স্মৃতিশক্তি। পাপের অন্ধকার ও জ্ঞানের আলো কখনো একসাথে থাকতে পারে না।

আল-খাতীব আল-জামী'(২/৩৮৭) গ্রন্থে বর্ণনা করেন যে ইয়াহইয়া বিন ইয়াহইয়া বলেন

“এক ব্যক্তি মালিক ইবনে আনাসকে প্রশ্ন করেছিলেন, ‘হে আবদ-আল্লাহ, আমার স্মৃতিশক্তিকে শক্তিশালী করে দিতে পারে এমন কোন কিছু কি আছে? তিনি বলেন, যদি কোন কিছু স্মৃতিকে শক্তিশালী করতে পারে তা হলো পাপ করা ছেড়ে দেয়া।’”

দ্বিতীয়-দু’আ ও আল্লাহর যিকরঃ আমরা সকলেই জানি আল্লাহর সাহায্য ছাড়া কোনো কাজেই সফলতা অর্জন করা সম্ভব নয়। এজন্য আমাদের উচিত সর্বদা আল্লাহর কাছে দু’আ করা যাতে তিনি আমাদের স্মৃতিশক্তি বাড়িয়ে দেন এবং কল্যাণকর জ্ঞান দান করেন। এক্ষেত্রে আমরা নিন্মোক্ত দু’আটি পাঠ করতে পারি,"রাব্বি যিদনী ইলমা!অর্থ-হে আমার পালনকর্তা, আমার জ্ঞান বৃদ্ধি করুন।” [সূরা ত্বা-হাঃ ১১৪]

তাছাড়া যিকর বা আল্লাহর স্মরণও স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা’আলা বলেন,

“…যখন ভুলে যান, তখন আপনার পালনকর্তাকে স্মরণ করুন…” [সূরা আল-কাহ্‌ফঃ ২৪]

তাই আমাদের উচিত বেশি বেশি যিকর করা।

তারপর-মস্তিষ্কের জন্য উপকারী খাদ্য গ্রহণঃ পরিমিত ও সুষম খাদ্য গ্রহণ আমাদের মস্তিষ্কের সুস্বাস্থ্যের জন্য একান্ত আবশ্যক। অতিরিক্ত খাদ্য গ্রহণ আমাদের ঘুম বাড়িয়ে দেয়, যা আমাদের অলস করে তোলে। ফলে আমরা জ্ঞানার্জন থেকে বিমুখ হয়ে পড়ি।

সর্বশেষও গুরুত্বপূর্ণঃ-পরিমিত পরিমাণে বিশ্রাম নেয়াঃ আমরা যখন ঘুমাই তখন আমাদের মস্তিষ্ক অনেকটা ব্যস্ত অফিসের মতো কাজ করে। এটি তখন সারাদিনের সংগৃহীত তথ্যসমূহ প্রক্রিয়াজাত করে। তাছাড়া ঘুম মস্তিষ্ক কোষের পুণর্গঠন ও ক্লান্তি দূর করার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

মেনে চলতে পারলে ইনশাআল্লাহ উপকৃত হবেন৷ ধন্যবাদ   

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

0 টি উত্তর
22 ডিসেম্বর 2017 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন kamrul1205 (20 পয়েন্ট)
0 টি উত্তর
2 টি উত্তর
11 মার্চ "সাধারণ" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Dipto443 (14 পয়েন্ট)

332,131 টি প্রশ্ন

423,020 টি উত্তর

131,421 টি মন্তব্য

181,261 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...