বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
86 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (64 পয়েন্ট)
আমি শুনেছি আমাদের জন্ম, মৃত্যু ( যেখানে যেই সময় যেই স্থান এ যার মৃত্যু লেখা আছে সেখানেই হবে)  এবং বিবাহ (কার সাথে কার বিবাহ হবে এবং কখন হবে) আমাদের রুহু পৃথিবীতে আসার আগেই ঠিক করে রাখা হয়েছে। যদি সব ঠিক করেই রাখা হয় কার কবে জন্ম বা মৃত্যু কখন কোন স্থান এ কিভাবে হবে তাহলে কেন আমরা আল্লাহর কাছে আমাদের হায়াত বাড়ানোর জন্য দোআ করি?? তবে কেন আল্লাহ বলেছেন তোমরা তোমাদের জন্য সর্বোত্তম সঙ্গিনী তালাশ করে নাও। যদি আমার ভাগ্যে লেখাই থাকে তাহলে তালাশ করে কি হবে?? এসবের অর্থ কি এরকম যে হায়াত আল্লাহ তায়ালা তার ইচ্ছায় আমাদের হায়াত বাড়িয়ে দেন?? বা বিবাহ করার ক্ষেত্রে ভাগ্যের বাইরেও কিছু ব্যাপার থাকে??

বি দ্রঃ দয়া করে উত্তরে যুক্তিসংগত এবং হাদীস/কোরআন ভিত্তিক কথা বলবেন 

আমি জানি আল্লাহ চাইলে সব পারেন। কিন্তু তিনি সব পারেন এরকম উত্তর না দিয়ে আল্লাহ পরিবর্তন করেন কিনা সেটার ব্যাখা দিলে খুশি হবো।

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (7,601 পয়েন্ট)
তাকদীর বা ভাগ্য পূর্ব-নির্ধারিত।

এ মহাবিশ্বে যা কিছু ঘটবে আল্লাহ তাআলা কর্তৃক তার পূর্বজ্ঞান ও প্রজ্ঞা অনুযায়ী সেসব কিছু নির্ধারণ করে রাখাকে তাকদীর বলা হয়।

আল্লাহ তাআলা বলেন: তুমি কি জান না যে, নভোমণ্ডলে ও ভুমন্ডলে যা কিছু আছে আল্লাহ সবকিছু জানেন। নিশ্চয় এসব কিতাবে লিখিত আছে। নিশ্চয় এটা আল্লাহর কাছে সহজ। (সূরা হজ্জ, আয়াত: ৭০)

সহিহ মুসলিমে আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস (রাঃ) থেকে বর্ণিত আছে তিনি বলেন, আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি তিনি বলেন: আল্লাহ তাআলা সৃষ্টিকূল সৃষ্টির পঞ্চাশ হাজার বছর আগে সৃষ্টিকূলের তাকদীর লিখে রেখেছেন।

তিনি আরো বলেন: আল্লাহ তাআলা প্রথম সৃষ্টি করেছেন কলম। সৃষ্টির পর কলমকে বললেন: লিখ। কলম বলল: ইয়া রব্ব! কী লিখব? তিনি বললেন: কেয়ামত পর্যন্ত প্রত্যেক জিনিসের তাকদীর লিখ। (আবু দাউদ: ৪৭০০)।

সাওবান (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেনঃ কেবল সৎ কর্মই আয়ু বৃদ্ধি করে এবং দুআ ব্যতীত অন্য কিছুতে তাকদীর রদ হয় না। মানুষের অসৎ কর্মই তাকে রিযিক বঞ্চিত করে।

(সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নম্বরঃ ৯০ হাদিসের মানঃ হাসান)।

জবাব! কেবল দুআর মাধ্যমেই ভাগ্য পরিবর্তন হয়। এজন্য-ই আমরা আল্লাহর কাছে আমাদের হায়াত বাড়ানোর জন্য দুআ করি।

[বিস্তারিত জানার জন্য মন্তব্য করতে পারেন]
করেছেন (64 পয়েন্ট)
এর অর্থ কি আমাদের দোআ এর মাধ্যমে আমাদের সঙ্গিনীও পরিবর্তন হতে পারে? যেটা আল্লাহ অনেক আগেই লিখে রেখেছেন??

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
26 ফেব্রুয়ারি 2014 "প্রেম-ভালোবাসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Aunahut Autithi (11 পয়েন্ট)
1 উত্তর
1 উত্তর
1 উত্তর
06 জানুয়ারি "রসায়ন" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Arafath Tamim (20 পয়েন্ট)

312,081 টি প্রশ্ন

401,656 টি উত্তর

123,408 টি মন্তব্য

172,954 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...