বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
78 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (708 পয়েন্ট)
করেছেন (4,652 পয়েন্ট)
কার ক্ষেত্রে? পুরুষ নাকি মহিলার?

2 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (660 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর

পুরুষদের জন্য মেহেদী ব্যবহার

করা জায়েয নেই। বরং সাজ-

সজ্জার উদ্যেশ্যে তারা কখনও

হাতে-পায়ে মেহেদী লাগাতে

পারবে না। কারণ এটা এক ধরনের

রঙ। আর পুরুষদের জন্য রঙ ব্যবহার

করা নিষিদ্ধ।

ﻋﻦ ﺃﺑﻲ ﻫﺮﻳﺮﺓ ﻗﺎﻝ ﻗﺎﻝ ﺭﺳﻮﻝ ﺍﻟﻠﻪ ﷺ ﻃﻴﺐ

ﺍﻟﺮﺟﺎﻝ ﻣﺎ ﻇﻬﺮ ﺭﻳﺤﻪ ﻭﺧﻔﻲ ﻟﻮﻧﻪ ﻭﻃﻴﺐ ﺍﻟﻨﺴﺎﺀ

ﻣﺎ ﻇﻬﺮ ﻟﻮﻧﻪ ﻭﺧﻔﻲ ﺭﻳﺤﻪ

আবূ হুরাইরাহ রাযি. হতে বর্ণিত,

তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ

সাল্লাল্লাহু আলাইহি

ওয়াসাল্লাম বলেছেন, পুরুষের

সুগন্ধি এমন হবে যার সুগন্ধ

প্রকাশ পায় কিন্তু রঙ গোপন

থাকে এবং নারীর সুগন্ধি এমন

হবে যার রঙ প্রকাশ পায় কিন্তু

সুগন্ধ গোপন থাকে। ( তিরমিযী

হাদীস নং ২৭৮৭)

0 টি পছন্দ
করেছেন (7,394 পয়েন্ট)
খিযাব আরবী শব্দ। এর শাব্দিক অর্থ, রন্ধন বা রং করার পদার্থ, যার দ্বারা রং করা হয়। আর শব্দটির ক্রিয়ামূল হিসেবে অর্থ করলে অর্থ হবে রং করা। পরিভাষায় মেহেদী কিংবা কোন প্রকার উদ্ভিদ, যা দ্বারা দাঁড়ি-চুল রঙ্গীন করাকে বুঝায়।

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের খাদিমা ছিলেন। তিনি বলেন, যখন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের দেহে কোন তলোয়ার বা দা-এর আঘাতে ক্ষত হতো, তিনি তাতে মেহেদী লাগানোর জন্য আমাকে নির্দেশ দিতেন।

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম মেহেদী ও কতম একত্র করে কলপ লাগিয়েছিলেন। এতে তাঁর সাদা চুল টুকটুকে লাল রং ধারণ করেছিল।

তাই কোন পুরুষ যদি দাঁড়ি-চুল রঙ্গীন বা চিকিৎসার জন্য মেহেদী লাগায় এতে তার জন্য হারাম হবে না। চুল ও দাঁড়ি আর চিকিৎসার প্রয়োজনে যেকোনো স্থানে মেহেদী ব্যবহার করা জায়েজ আছে।

তবে কোন পুরুষ যদি সৌন্দর্য বৃদ্ধি কল্পে মহিলার সাজে হাতে পায়ে মেহেদী লাগায় এটা তার জন্য হারাম হবে।

আবূ হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেনঃ একদা নবী করীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কাছে একজন নপুসংক আসে, যার দুইই হাত ও পা মেহেদী রংয়ে রঞ্জিত ছিল। তখন নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জিজ্ঞাসা করেনঃ এ ব্যক্তির অবস্থা কী?

জবাবে সাহাবীগণ বলেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! এ ব্যক্তি স্ত্রীলোকদের সাজে সেজেছে। তখন তাকে শহর থেকে বের করে দেয়ার হুকুম হলে, তাকে নাকী নামক স্থানের দিকে বের করে দেয়া হয়। এ সময় সাহাবীগণ জিজ্ঞাসা করেনঃ ইয়া রাসূলাল্লাহ! আমরা কি তাকে হত্যা করবো না? তিনি বলেনঃ আমাকে নামাজীদের হত্যা করতে নিষেধ করা হয়েছে।

(সূনান আবু দাউদ, হাদিস নম্বরঃ ৪৮৪৫ হাদিসের মানঃ সহিহ)।

ফিকহবিদদের মতে, নারীদের জন্য মেহেদী ব্যবহার করা উত্তম। এক মহিলা হযরত আয়শা (রাঃ) এর কাছে মেহেদী লাগানো বিষয়ে জিজ্ঞেস করলে তিনি জবাবে বলেন, এতে কোন সমস্যা নেই।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
17 ফেব্রুয়ারি "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Noor Mohammad Sadik (20 পয়েন্ট)
0 টি উত্তর
1 উত্তর
20 অক্টোবর 2015 "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Sk Totul (29 পয়েন্ট)
1 উত্তর

306,699 টি প্রশ্ন

395,571 টি উত্তর

120,746 টি মন্তব্য

169,943 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...