বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
60 জন দেখেছেন
"বিজ্ঞান ও প্রকৌশল" বিভাগে করেছেন (4,430 পয়েন্ট)
পূনঃরায় খোলা করেছেন

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (17,359 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
পাকা আমে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ট্রিপটোফ্যান, যা নিদ্রাকোর্ষী রাসায়নিক হিসেবে কাজ করে। এ ছাড়াও আমে আছে কার্বোহাইড্রেটস, ফাইবার, ভিটামিন আর মিনারেল, যা শরীরে ইনসুলিন লেভেল বাড়ায়। এই ইনসুলিন অধিক পরিমাণে ট্রিপটোফ্যান মস্তিষ্কে চালনা করে। ফলে মস্তিষ্কে ট্রিপটোফ্যান থেকে অনেক নিউরোট্রান্সমিটার সিনথেসিস হয়, যার ভেতরে সেরোটোনিন অন্যতম। আর মস্তিষ্কে সেরোটোনিনের বেশ কিছু কাজের ভেতরে একটা হলো মস্তিষ্ককে শীতল ও শান্ত করা। এর ফলে শরীর ধীরে ধীরে নিস্তেজ হতে থাকে।এককথায় বলা যায়, আমে অনেক বেশি ট্রিপটোফ্যান থাকায় পর্যাপ্ত সেরোটোনিন তৈরি হয়। আর সেরোটোনিন হচ্ছে ঘুমের জন্য দায়ী একটা নিউরোট্রান্সমিটার। অন্যদিকে ট্রিপটোফ্যানকে মস্তিষ্কে প্রবেশে সাহায্য করে ইনসুলিন। আর বেশি পরিমাণ ইনসুলিন নিঃসরণের কারণ হলো আমে বিদ্যমান কার্বোহাইড্রেটস বা গ্লুকোজ। এ কারণেই আম খেলে ঘুম আসে। বিশেষ করে রাতে ঘুমানোর আগে আম খেলে তন্দ্রাভাবটা জেগে ওঠে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

2 টি উত্তর
3 টি উত্তর
02 জুন 2018 "স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন ishak (196 পয়েন্ট)

312,942 টি প্রশ্ন

402,502 টি উত্তর

123,639 টি মন্তব্য

173,341 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...