বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
381 জন দেখেছেন
"ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স" বিভাগে করেছেন (4,190 পয়েন্ট)

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (4,190 পয়েন্ট)

১।      সোল্ডারিং করার পূর্বে পিসিবির কপার ট্রেসসমূহ যেখানে সোল্ডারিং করা হবে সেই স্থানগুলি ভালভাবে শিরিষ কাগজ অথবা ব্লেড দিয়ে ঘষে পরিস্কার করে নিতে হবে কারণ কপারের উপরে কপার অক্সাইডের আবরণ সৃষ্টি হয় এই আবরণের উপরে সোল্ডারিং লাগবে না।

২।      সকল কম্পোনেন্টসমূহের পিন ও টার্মিনালসমূহ একই ভাবে শিরিষ কাগজ অথবা ব্লেড দিয়ে ঘষে পরিস্কার করতে হবে।

৩।     পিসিবিতে ছোট ছোট কম্পোনেন্ট যেমন রেজিস্টর, ডায়োড ইত্যাদি আগে লাগাতে হবে এবং অপেক্ষাকৃত বড় কম্পোনেন্টসমূহ পরে লাগাতে হবে।

৪।      সোল্ডারিং আয়রনকে পিসিবির কপার ট্রেসের সাথে বেশী সময় ধরে রাখা উচিত নয় কারন এতে কপার ট্রেসে অতিরিক্ত তাপ প্রয়োগের কারনে কপারের স্তর বোর্ড হতে আলগা হয়ে উঠে আসতে পারে। অতিরিক্ত তাপ প্রয়োগে বিভিন্ন স্পর্শকাতর ইলেকট্রনিক ডিভাইস যেমন আইসি নষ্ট হয়ে যেতে পারে, তাই যতটা সম্ভব কম সময় সংযোগ বিন্দুতে তাপ প্রয়োগ করতে হবে।

৫।      সূক্ষ সোল্ডারিং যেমন আইসির পিন সোল্ডারিং করার জন্য চিকন অর্থাত ০.৫ মিঃ মিঃ ব্যাসের সোল্ডার ও সূচালো সোল্ডারিং আয়রন ব্যবহার করুন। মোটা কম্পোনেন্ট ও ভারি সোল্ডারিং করার জন্য মোটা ১ মিঃমিঃ হতে ১.২৫ মিঃ মিঃ ব্যাসের সোল্ডার এবং ফ্লাট বা চ্যাপ্টা ও বড় ৬০ থেকে ৮০ ওয়াটের সোল্ডারিং আয়রন ব্যবহার করুন।

৬।     যখন সোল্ডারিং করবেন তখন সোল্ডারিং আয়রনকে এমনভাবে স্থাপন করুন যেন আয়রনের টিপটি কপার ট্রেস ও কম্পোনেন্টের পিন উভয়কেই স্পর্শ করে এবার সোল্ডারকে আয়রনের টিপের উপর কম্পোনেন্ট পিনের নিকটবর্তী স্থানে স্থাপন করুন অথবা টিপ যে পার্শ্বে স্থাপিত হয়েছে তার বিপরীত পার্শ্বে স্থাপন করুন। এতে সোল্ডার আয়রন টিপের তাপে গলে টিপ চুইয়ে কপার ট্রেসের উপর ও কম্পোনেন্ট পিনের চারপার্শ্বে ছড়িয়ে পড়বে। এরূপ অবস্থা বুঝা গেলে সাথে সাথে টিপটি উঠিয়ে নিতে হবে। ফলে সোল্ডার তাপ বিকিরণ করে ঠান্ডা হয়ে জমে শক্ত সংযাগ সৃষ্টি করবে।

12

উপরের চিত্রটিতে একটি সুন্দর সোল্ডারিং এর চিত্র দেয়া হয়েছে। কিভাবে বুঝবেন সোল্ডারিং সুন্দর হয়েছে? যখন সোল্ডারিং দেখতে উপরোক্ত চিত্রের ন্যয় পর্বতের মত হয় এবং সোল্ডার খুব মসৃণ ও আটসাট ভাবে ওয়ার্কপিচের সাথে লেগে থাকে তখন বুঝা যাবে সোল্ডারিং ভাল হয়েছে।

13

৭।      সোল্ডারিং আয়রনের টিপকে কম্পোনেন্ট টার্মনালের সবচেয়ে নিকটবর্তী স্থানে স্থাপন করতে। দুরত্বে স্থাপন করা ভুল পদ্ধতি কারন এতে জাংশন পয়েন্টে কম তাপ সরবরাহ হয় ফলে সোল্ডার ভাল ভাবে গলেনা ও সংযোগ দৃঢ় হয় না বরং খসখসে, শুষ্ক ও ঠান্ডা সংযোগ সৃষ্টি হয়। উপরের চিত্রে কোনিক্যাল টিপ ও চ্যাপ্টা টিপ স্থাপনের নিয়ম দেখানো হয়েছে। কোনিক্যাল টিপের পার্শ্বকে কম্পোনেন্ট টার্মিনালের সাথে লাগিয়ে স্থাপন করতে হয় টিপের সূঁচালো প্রান্ত কপার ট্রেসে স্থাপন করা ভুল পদ্ধতি এতে যথাযথ পরিমান তাপ ওয়ার্কপিচে সরবরাহ হয় না। চ্যাপ্টা টিপকে চিত্রের মত করে কম্পোনেন্ট টার্মিনালের সাথে লাগিয়ে স্থাপন করতে হয়।

৮।     এতক্ষণ আমরা জানলাম কোথায় টিপ স্থাপন করতে হয় এবার জানি কোথায় সোল্ডার প্রয়োগ করতে হয়। সংযোগ পয়েন্টে টিপ স্থাপন করে ২ থেকে ৩ সেকেন্ড ধরে রাখলে ওয়ার্কপিচ উত্তপ্ত হয়ে উঠবে এর পর সোল্ডার প্রয়োগ করতে হয়। দুইভাবে সোল্ডার প্রয়োগ করা যায়। (১) সোল্ডারকে আয়রনের টিপের উপর কম্পোনেন্ট পিনের নিকটবর্তী স্থানে স্থাপন করুন। (২) অথবা টিপ যে পার্শ্বে স্থাপিত হয়েছে তার বিপরীত পার্শ্বে স্থাপন করুন চিত্রের মত।

14

৯।      নিচের চিত্রে কিছু ভাল সোল্ডারিং দেখানো হয়েছে। ভাল সোল্ডারিং বুঝবেন কিভাবে? ভাল সোল্ডারিংগুলি দেখতে খুব মসৃণ পর্বতাকৃতি হবে খুব বেশী সোল্ডার জমা হবেনা, আটসাট ভাবে ওয়ার্কপিচের সাথে দৃঢ়ভাবে লেগে থাকবে এবং কম্পোনেন্ট টার্মিনালের চারপাশ সোল্ডারে আবৃত থাকবে। নিচের চিত্রের মত।

15

১০।    এতক্ষণ আমরা জানলাম কোথায় সোল্ডার স্থাপন করতে হয় এবার জানি কি পরিমান সোল্ডার প্রয়োগ করতে হয়। এমন ভাবে সোল্ডার প্রয়োগ করতে হবে যেন সোল্ডারের পরিমান বেশী না হয় এবং কম না হয়। নিচের চিত্রে সঠিক পরিমান সোল্ডার দেখানো হয়েছে। নূন্যতম যে পরিমান সোল্ডার প্রয়োগ করলে কম্পোনেন্ট টার্মিনালের চারপার্শ্ব আবৃত হয় সে পরিমান সোল্ডার প্রয়োগ করতে হবে এবং তা দেখতে পর্বতাকৃতি হবে। সোল্ডার যদি গোলাকৃতি হয় তবে বুঝতে হবে সোল্ডার বেশী হয়েছে। বেশী সোল্ডার দেয়ার কুফল হলো সোল্ডারের অপচয় এবং অনেক সময়ই বেশী সোল্ডার পার্শ্বস্থ ট্রেসের সাথে শর্ট সার্কিট সৃষ্টি করে।

16

১১। এবার আমরা খারাপ জাংশন চেনার উপায়, খারাপ জাংশন সৃষ্টির কারণ এবং খারাপ জাংশনকে ভাল জাংশনে রূপান্তরের প্রকৃয়া জানব। নিচের চিত্রে কয়েকটি খারাপ জাংশন দেখানো হয়েছে। খারাপ জাংশনকে কোল্ড জাংশন বা ড্রাই জাংশন বলে কারণ এগুলি সোল্ডারিং আয়রনের অপর্যাপ্ত তাপমাত্রার করনে সৃষ্টি হয় এবং ওয়ার্কপিচ সঠিকভাবে সোল্ডারে ভিজেনা। খারাপ সোল্ডারিং দেখতে খসখসে অসম গোলাকৃতি হয় কিংবা কখনো ওয়ার্কপিচের সাথে সঠিকভাবে লেগে থাকেনা নিচের চিত্রের মত। খারাপ সোল্ডারিং সৃষ্টির কারণ হলো সোল্ডারিং আয়রণের অপর্যাপ্ত তাপমাত্রা, অতিরিক্ত তাপমাত্রা, সোল্ডারিং কাজে অনভিজ্ঞতা ইত্যাদি। ভাল সোল্ডারিং করার জন্য আয়রনের তাপমাত্রা সোল্ডারের মেলটিং পয়েন্ট/গলনাংক অপেক্ষ বেশী হতে হবে। ধরুন আপনি ৬০/৪০ সোল্ডার ব্যবহার করছেন এর গলনাংক ৩৭০ ডিগ্রি ফাঃ/১৮৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড। তাহলে আয়রনের তাপমাত্রা ১৮৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড অপেক্ষা বেশী হতে হবে, উদাহরণ সরূপ তাপমাত্রা ৪৬০ ডিগ্রি ফাঃ/২৩৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড হতে পারে। এভাবে আপনার ব্যবহৃত সোল্ডারের ধরণ বুঝে আপনার আয়রনের তাপমাত্রা নির্ধারন করুন। বেশী ওয়াটের আয়রন ব্যবহার করলে বেশী তাপমাত্রা পাওয়া যায়। তাপমাত্রা কম হলে সোল্ডারিং ভাল হয়না আবার বেশী তাপমাত্রারও কুফল রয়েছে। তাপমাত্র খুব বেশী হলে সোল্ডারের অভ্যন্তরীন ফ্লাক্স দ্রুত বাষ্পে পরিনত হয় বা উদায়ী হয় ফলে এক্ষেত্রেও সোল্ডারর অক্সাইড উৎপন্ন হয়ে শুষ্ক ও খসখসে সোল্ডারিং সৃষ্টি হয়, তাই আপনার সোল্ডারের ধরন বুঝে সঠিক তাপমাত্রা নির্ধারন করুন। পরিমিত মাত্রায় সোল্ডার প্রয়োগ করুন, খুব বেশী নয় কমও নয়।

17

এবার আসুন খারাপ সোল্ডারিংকে ( শুষ্ক, ঠান্ডা জাংশন) উন্নত করার চেষ্টা করি। উপরের চিত্রে কিছু খারাপ জাংশন দেখানো হয়েছে। এরূপ জাংশনকে উন্নত করতে হলে পরিমিত মাত্রায় উত্তপ্ত আয়রন টিপকে জাংশনের উপর স্থাপন করে সোল্ডারকে গলাতে হবে এবং অতঃপর গলিত সোল্ডরের উপর রজন গুড়া ছিটিয়ে দিলে উৎপন্ন অক্সাইড দুর হয়ে জাংশনটি ধীরে ধীরে মসৃণ ও সুন্দর হবে।

টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
18 এপ্রিল 2018 "ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন মাহমুদ হোসেন (6 পয়েন্ট)
1 উত্তর
16 সেপ্টেম্বর 2017 "ইলেকট্রিক্যাল এন্ড ইলেকট্রনিক্স" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অনিক ইসলাম (2 পয়েন্ট)

300,478 টি প্রশ্ন

388,357 টি উত্তর

117,371 টি মন্তব্য

165,882 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...