বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
18 জন দেখেছেন
"পদার্থবিজ্ঞান" বিভাগে করেছেন (1 পয়েন্ট )

1 উত্তর

0 টি পছন্দ
করেছেন (3,143 পয়েন্ট)
এই প্রশ্ন বুঝতে হলে আগে বুঝতে হবে রোধ কি। রোধের ধর্ম কি? কিভাবে রোধ পরিবর্তিত হয়?

পরিবাহীর যে ধর্মের জন্য পরিবাহকের মধ্য দিয়ে বিদ্যুৎ চলতে বাধা পায় তাকে রোধ বলে।

পৃথিবীর সকল পরিবাহীর রোধ আছে। কোনটির কম, কোনটির বেশি। আবার পরিবাহকটি সরু হলে রোধ বৃদ্ধি পায়, আবার দৈর্ঘ বাড়ালেও রোধ বৃদ্ধি পায়। আবার তাপের প্রভাবে রোধের পরিবর্তন হয়। 

এখন ধরুন কোন রোধের ভেতর দিয়া আপনি বিদ্যুৎ চালনা করছেন তাহলে রোধ r হবে ১/ভোল্ট এর সমানুপাতিক। অর্থাৎ ভোল্ট বাড়ালে রোধের ভেতর দিয়া বিদ্যুৎ বেশি যাবে। এখন কোন পরিবাহীর স্টান্ডার্ড  রোধের মান বা আপেক্ষিক রোধের চেয়েও ভোল্ট বাড়ালে ঐ রোধ  গরম হয়ে তাপ উৎপন্ন করবে এমন ভাবে যে ভোল্ট বাড়ানোর ফলাফল প্রশমিত করতে ঐ রোধের মান কমে যাবে। তাই রোধ গরম হয়ে পরিবাহকত্ব বৃদ্ধি ঘটাবে।

এখন আপনার প্রশ্নের উত্তরে বলিঃ

বালবের ফিলামেন্ট টাংস্টেন দিয়া তৈরি এটি  ধাতু ও ভাল পরিবাহক। তার মানে এই না যে এর রোধ নেই। সবচেয়ে ভাল পরিবাহক হচ্ছে রুপা। তার মানে রুপার চেয়ে টাংস্টেন এর রোধ বেশি। আবার বালবে টাংস্টেন কে সরু ও পেচিয়ে কন্ডুলী করা হয় যাতে অল্প জায়গায় অধিক লম্বা কেবল রাখা যায়। কারন সরু করে তারের রোধ বৃদ্ধি করা হয়। আবার লম্বা করলেও রোধ বৃদ্ধি পায়। কাজেই বালবের তারে ভালই রোধ থাকে। ফলে এর ভেতর দিয়া নির্দিষ্ট চাপে বিদ্যুৎ দিলে তা প্রবাহিত হতে বাধা দেয়। কিন্তু চাপের ফলে রোধ পাস করে বিদ্যুৎ যায় ফলে রোধ অতিরিক্ত বিদ্যুতকে তাপে রুপান্তর করে চাপের ফলাফল প্রশমিত করে। এই তাপ এতই বেশি যে তা আলোকে রুপান্তর হয়। যদি তারে রোধ না থাকত তবে খাম্বার লাইনের মত কেবল গরম হতনা, আলোও পেতাম না।

এবার বলি ফ্যানের কথা। ফ্যানের কেবলেও রোধ আছে তবে সে রোধ কম। আর কেবল সরু করে নির্দিষ্ট রোধ তৈরি করা হয়। এখন থিউরি অনুযায়ী ফ্যানে বিদ্যুৎ দিলে সিনক্রোনাস ভাবে কয়েলে তড়িত চুম্বক ক্ষেত্র তৈরি হয়। দুই কয়েলের ভিন্ন চুম্বক ক্ষেত্র টর্ক বল সৃষ্টি করে তাই ফ্যান ঘোরে। থিউরি অনুযায়ী এখানে তাপের কোন বিষয় নাই। কিন্তু বাস্তবে কি তাই? দেখবেন কয়েল বডি গরম কারন কয়েলের তারের রোধ বিদ্যুৎ প্রবাহ হতে বাধা দিচ্ছে। তাই চাপের মান প্রশমন করতে কিছু বিদ্যুৎ বাধা পেয়ে তাপে রুপান্তরিত হয়ে গরম হচ্ছে। কাজেই বলা যায় সবকিছুর রোধ আছে। শুধু কম আর বেশি। আর এটি পরিমাপ করতে সর্বনিম্ন একটি মানকে আদর্শ ধরা হয়। যেমন ০ বলতে বোঝায় রোধ নাই আর ১ বলতে বোঝায় রোধ আছে। কিন্তু কোন বস্তুর রোধ ০ হতে পারেনা।  ঐ বস্তুতে যে রোধ আছে তাকে ০ ধরে অন্য বস্তুর রোধের মান হিসাব করা হয় মাত্র। আর এ ক্ষেত্রে ২,৩ ওহমস রোধকে বেশি রোধ বলে ধরা হয়না। বালব আর ফ্যানের রোধের পার্থক্য এটাই। ফ্যানের রোধ এক ওহমস হলে বালবের রোধ ধরুন ১০০ ওহমস তাই বালবে আলো হয়, ফ্যানে আলো হয়না। কিন্তু উভয়ের রোধ জনিত তাপ উৎপন্ন হয়। উভয়ের রোধ আছে।
টি উত্তর

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

3 টি উত্তর
17 মে "পদার্থবিজ্ঞান" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল

300,469 টি প্রশ্ন

388,351 টি উত্তর

117,370 টি মন্তব্য

165,873 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...