বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
51 জন দেখেছেন
"ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে করেছেন (20 পয়েন্ট)
পূনঃরায় খোলা করেছেন
"যাতে তুমি এমন এক কওমকে সতর্ক কর, যাদের পিতৃপুরুষদেরকে সতর্ক করা হয়নি, কাজেই তারা উদাসীন।" (৩৬ঃঃ৬)। এই আয়াতে একটি জাতিকে সতর্ক না করার কথা বলা হয়েছে। তাহলেতো ঐ জাতি ইসলামের দাওয়াত পায়নি। কিন্তু তারা যদি কিয়ামতের দিন আল্লাহর কাছে নালিশ করে যে তাদের কাছে কোন সতর্ক বার্তা আসেনি। আসলে তারা হয়তো ঈমান আনতো। যদিও তারা আনতোনা কিন্তু কিয়ামতের দিন শাস্তি থেকে বাচার জন্য এমনটা বললে আল্লাহ তায়ালা কিভাবে বিচার করবেন?
করেছেন (197 পয়েন্ট)
এখানে আল্লাহ ঐ পিতৃপুরুষদেরকে কোরআন দিয়ে সতর্ক করেনি। মানে অন্য কোন গ্রন্থ দিয়ে করেছেন। আপনি ৫ নম্বর আয়াত থেকে পড়তে পারেন তাহলে বুঝতে পারবেন। আমার ধারণা থেকে আপনাকে বললাম।
৫ .কোরআন পরাক্রমশালী পরম দয়ালু আল্লাহর তরফ থেকে অবতীর্ণ

৫.যাতে তুমি এমন এক কওমকে সতর্ক কর, যাদের পিতৃপুরুষদেরকে সতর্ক করা হয়নি, কাজেই তারা উদাসীন।

1 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (10,638 পয়েন্ট)
মহা পরাক্রমশালী আল্লাহ তায়ালা কুরআন অবতীর্ণ করেছেন যাতে সে সকল লোকদেরকে আল্লাহ তাআলার শাস্তি ও জাহান্নামের ভয় দেখাতে পারেন যাদের পূর্বপুরুষদেরকে ভীতি-প্রদর্শন করা হয়নি, তারা এ সম্পর্কে গাফেল ছিল।

আল্লাহ কোন জাতির কাছে রাসূল প্রেরণ না করে শাস্তি দেন না।

আল্লাহ তায়ালা বলেনঃ যে সৎপথ অবলম্বন করবে সে তো নিজেরই মঙ্গলের জন্য সৎপথ অবলম্বন করে এবং যে পথভ্রষ্ট হবে সে তো পথভ্রষ্ট হবে নিজেরই ধ্বংসের জন্য। আর কোন বহনকারী অন্য কারো ভার বহন করবে না। আর আমরা রাসুল না পাঠানো পর্যন্ত শাস্তি প্রদানকারী নই। (সূরা বানী ইসরাইলঃ ১৫)

তবে এ ধরনের আয়াত পড়ে যাদের কাছে কোন নবীর পয়গাম পৌঁছেনি। তাদের অবস্থান কোথায় হবে, এ প্রশ্ন নিয়ে মাথা ঘামানোর চেয়ে একজন বুদ্ধিমান ব্যক্তির চিন্তা করা উচিত, তার নিজের কাছে তো পয়গাম পৌঁছে গেছে, এখন তার অবস্থা কি হবে?

আর অন্যের ব্যাপারে বলা যায়, কার কাছে, কবে, কিভাবে এবং কি পরিমাণ আল্লাহর পয়গাম পৌছেছে এসে তার সাথে কি আচরণ করেছে এবং কেন করেছে তা আল্লাহই ভালো জানেন। আলেমুল গায়েব ছাড়া কেউ বলতে পারেন না। কার উপর আল্লাহর প্রমাণ পুরোপুরি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এবং কার উপর হয়নি।

যারা দ্বীনের দাওয়াত পায়নি তাদেরকে হাশরের মাঠে পরীক্ষা করা হবে। সে পরীক্ষায় যারা পাশ করবে তারা হবে জান্নাতি। আর পাশ না করলে হবে জাহান্নামি। এমতটি সবচেয়ে বেশী গ্রহণযোগ্য মত। এ ব্যাপারে মুসনাদে আহমাদের [৪/২৪] এক হাদীস থেকে প্রমাণ পাই। সত্যাম্বেষী আলেমগণ এমতকেই প্রাধান্য দিয়েছেন। ইবন কাসীর এ ব্যাপারে আরও বিস্তারিত আলোচনা করেছেন। (ইবনে কাসীর)

কি রকম পরিক্ষা হবে উদাহরণ দিয়ে বলিঃ

যারা দুনিয়াতে ইসলামের দাওয়াত পায়নি তাদেরকে কিয়ামতের দিন বলা হবে যে তারা যদি ইসলামের দাওয়াত পেত তাহলে তা মানত কি না?

যদি তারা বলে যে ইসলামের দাওয়াত পেলে তারা তা মানত। আল্লাহর হুকুম পালন করত। এজন্য আল্লাহ তায়ালা তাদেরকে পরীক্ষা করার জন্য জাহান্নামের কাছে নিয়ে বলবেন যে আল্লাহর আদেশ হলো তোমরা এই জাহান্নামে ঝাঁপিয়ে পড়। তখন তাদের মধ্য থেকে কিছু লোক ঝাঁপ দিবে। এরকম তিনবার করবে। তারপর যারা অবশিষ্ট থাকবে অর্থাৎ ঝাঁপ দিবে না তাদেরকে বলা হবে যে তারা তো আল্লাহর হুকুম অমান্য করেছে তাই তাদেরকে জাহান্নামে নিক্ষেপ করা হবে। আর যারা আল্লাহর হুকুম মেনে জাহান্নামে ঝাঁপ দিয়েছিল তাদেরকে জাহান্নাম থেকে তুলে আনা হবে এবং জান্নাতে প্রবেশ করানো হবে। আর তারা যে জাহান্নামের আগুনে ঝাঁপ দিয়েছিল তা মূলত ছিল ইবরাহীম আলাইহিস সালাতু ওয়াস সালামের আগুনের মত হবে।
সাবির ইসলাম অত্যন্ত ধর্মীয় জ্ঞান পিপাসু এক জ্ঞানান্বেষী। জ্ঞান অন্বেষণ চেতনায় জাগ্রতময়। আপন জ্ঞানকে আরো সমুন্নত করার ইচ্ছা নিয়েই তথ্য প্রযুক্তির জগতে যুক্ত হয়েছেন নিজে জানতে এবং অন্যকে জানাতে। লক্ষ কোটি মানুষের নীরব আলাপনের তীর্থ ক্ষেত্রে যুক্ত আছেন একজন সমন্বয়ক হিসেবে।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

1 উত্তর
10 মে "ফাতাওয়া-আরকানুল-ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Saiyan khan (2,012 পয়েন্ট)
0 টি উত্তর
01 জানুয়ারি "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন mishkatbd (19 পয়েন্ট)
0 টি উত্তর
10 নভেম্বর "ধর্ম ও আধ্যাত্মিক বিশ্বাস" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন অজ্ঞাতকুলশীল
1 উত্তর
11 অক্টোবর "ইসলাম" বিভাগে জিজ্ঞাসা করেছেন Akramul Haque Firoz (125 পয়েন্ট)

359,102 টি প্রশ্ন

454,239 টি উত্তর

142,248 টি মন্তব্য

190,067 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...