বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
248 জন দেখেছেন
"ইসলাম" বিভাগে করেছেন (75 পয়েন্ট)
পূনঃরায় খোলা করেছেন
ইসলাম ধর্মে এমনি নিজের, মানুষের বা প্রানী অথবা জড় বস্তুর ছবি তোলা কি হারাম?

3 উত্তর

+2 টি পছন্দ
করেছেন (10,638 পয়েন্ট)
ইসলাম ধর্মে বিচরণশীল প্রাণীর ছবি আঁকা বৈধ নয়। (ইবনে ঊষাইমীন)

ছবি অঙ্কনকারী বা চিত্র শিল্পীদের পরিণাম সম্পর্কেঃ

আবু হুরায়রা (রাঃ) থেকে বর্ণিত আছে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এরশাদ করেছেনঃ

আল্লাহ তাআলা বলেন, তার চেয়ে বড় জালেম আর কে হতে পারে, যে ব্যক্তি আমার সৃষ্টির মতো সৃষ্টি করতে চায়। তাদের শক্তি থাকলে তারা একটা অনু সৃষ্টি করুক অথবা একটি খাদ্যের দানা সৃষ্টি করুক অথবা একটি গমের দানা তৈরী করুক। (বুখারি ও মুসলিম)

হযরত আয়েশা (রাঃ) থেকে বর্ণিত আছে, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম এরশাদ করেছেনঃ

কেয়ামতের দিন সবচেয়ে শাস্তি পাবে তারাই যারা আল্লাহ তাআলার সৃষ্টির মতো ছবি বা চিত্র অঙ্কন করে। (বুখারি ও মুসলিম)

ইবনে আববাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত আছে, তিনি বলেন, আমি রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামকে বলতে শুনেছি,

প্রত্যেক চিত্র অঙ্কনকারীই জাহান্নামী। চিত্রকর যতটি (প্রাণীর) চিত্র এঁকেছে ততটি প্রাণ তাকে দেয়া হবে। এর মাধ্যমে তাকে জাহান্নামে শাস্তি দেয়া হবে। (মুসলিম)

ইবনে আববাস (রাঃ) থেকে ‘মারফু’ হাদীসে বর্ণিত আছে,

যে ব্যক্তি দুনিয়াতে কোন (প্রাণীর) চিত্র অঙ্কন করবে, কিয়ামতের দিন তাকে ঐ চিত্রে আত্মা দেয়ার জন্য বাধ্য করা হবে। অথচ সে আত্মা দিতে সক্ষম হবে না। (বুখারি ও মুসলিম)

এখন প্রশ্ন ফটোগ্রাফের বা ক্যামেরার ছবিও কি হারাম?

অনেকে বলেছেন, ক্যামেরার ছবি নিষেধের পর্যায়ভুক্ত নয়। কিন্তু নিষেধের কারণ বিশ্লেষণ করলেই তা অবৈধ মনে হয়। তবে পরিচয়পত্র ইত্যাদির প্রয়োজনে তা বৈধ। (ফাতওয়া)

অথবা, ক্যামেরার মাধ্যমে ছবি উঠানোর বিধান কি?

এর উত্তরে অনেকেই বলেছেনঃ ক্যামেরার মাধ্যমে ছবি তোলাতে কোন অসুবিধা নেই। কারণ এ জন্য হাতে কোন প্রকার কাজ করতে হয়না। এভাবে ছবি উঠালে নিষেধের অন্তর্ভুক্ত হবে না।

তবে প্রশ্ন এই যে, ছবি তোলার উদ্দেশ্য কি?

উদ্দেশ্য যদি হয় ছবিকে সম্মান করা, তা হলে হারাম হবে। কারণ নিষিদ্ধ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য মাধ্যম ও উপকরণ ব্যবহার করাও হারাম। তাই স্মৃতি সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে ছবি সংগ্রহ করা নিষেধ।

রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেনঃ

যে ঘরে ছবি রয়েছে, সেই ঘরে আল্লাহর রহমতের ফেরেশতা প্রবেশ করে না। এই হাদীসটি প্রমাণ করে যে, ঘরে ছবি রাখা অথবা দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখা জায়েয নয়।

জনাব! জড় বস্তুর ছবি তোলা হারাম নয়।

ইবনে আববাস রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি যে, প্রত্যেক ছবি 'বা মূর্তি' নির্মাতা জাহান্নামে যাবে, তার নির্মিত প্রতিটি ছবি বা মূর্তির পরিবর্তে একটি করে প্রাণ সৃষ্টি করা হবে, যা তাকে জাহান্নামে শাস্তি দিতে থাকবে। ইবনে আববাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, যদি তুমি করতেই চাও, তাহলে গাছপালা ও নিষ্প্রাণ বস্তুর ছবি বা মূর্তি তৈরি করতে পার।

(রিয়াযুস স্বা-লিহীন, হাদিস নম্বরঃ ১৬৮৯ সহীহুল বুখারী ২২২৫, ৫৯৬৩, ৭০৪২, মুসলিম ২১১০, তিরমিযী ১৭৫১, ২২৮৩, নাসায়ী ৫৩৫৮, ৫৩৫৯, আবূ দাউদ ৫০২৪, ইবনু মাজাহ ৩৯১৬, আহমাদ ১৮৬৯, ২১৬৩, ২২১৪, ২৮০৬, ৩২৬২, ৩৩৭৩, ৩৩৮৪ হাদিসের মানঃ সহিহ)।
সাবির ইসলাম অত্যন্ত ধর্মীয় জ্ঞান পিপাসু এক জ্ঞানান্বেষী। জ্ঞান অন্বেষণ চেতনায় জাগ্রতময়। আপন জ্ঞানকে আরো সমুন্নত করার ইচ্ছা নিয়েই তথ্য প্রযুক্তির জগতে যুক্ত হয়েছেন নিজে জানতে এবং অন্যকে জানাতে। লক্ষ কোটি মানুষের নীরব আলাপনের তীর্থ ক্ষেত্রে যুক্ত আছেন একজন সমন্বয়ক হিসেবে।
করেছেন (22 পয়েন্ট)
বুঝলাম কিন্তু  ক্ষেত্র বিশেষে কি ছবি তোলা যায়েজ আছে...?
যদি ছবি তোলা ক্ষেত্র বিশেষেও হারাম হয় তাইলে বর্তমান যুগে আমরা হজ্জ করতে পারবো না তো। কারন হজ্জ করতে গেলে ছবি দিতে হয়...?
করেছেন (10,638 পয়েন্ট)
যেখানে শরয়ী জরুরত বিদ্যমান বলে ওলামাগণ মনে করেন, সেখানে দ্বীন সুরক্ষার বিশেষ প্রয়োজনে ক্যামেরা সহযোগে ছবি তোলা নিষেধ নয়।

অনুরুপভাবে পরিচয়পত্র এবং পাসপোর্ট তৈরি বা হজ্জে যেতে এজাতীয় বিশেষ প্রয়োজনে ছবি তোলা যায়।

বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ছবি তোলা, আঁকা এবং তা প্রকাশ করা কোরআন, হাদিস, ইজমা ও কিয়াসের ভিত্তিতে সব ইমাম ও ফিকহ বিশেষজ্ঞ ও সমকালীন মুফতিদের মতে জায়েয নয়।

(ফিকহি মাকালাতঃ তকি উসমানীঃ ৪/১২৩)
করেছেন (4,094 পয়েন্ট)
@Sabirul Islam, ভাই আমি ক্যামেরায় ছবি তুলে সেগুলো ইডিট করি। অর্থাৎ প্রত্যক্ষ ভাবে না হলেও পরোক্ষভাবে হাতে ছবির কাজ করি- এগুলো কি হারাম?
+1 টি পছন্দ
করেছেন (2,765 পয়েন্ট)
হ্যাঁ, ইসলামে কোন প্রাণীর ছবি তোলা হারাম।
এ সম্পর্কে আব্দুল্লাহ ইবন মাসউদ (রা.) থেকে বর্ণিত যে রাসূলুল্লাহ(সা.) বলেছেন: “কিয়ামতের দিন সবচেয়ে কঠিন শাস্তি ভোগ করবে [জীবন্ত বস্তুর] ছবি তৈরী কারীরা।”
[বুখারী: ৫৯৫০; মুসলিম: ২১০৯]

ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত হাদীস থেকে জানা যায়, রাসূলুল্লাহ (সা.) বলেছেন: “যে কেউই ছবি তৈরী করল, আল্লাহ তাকে [কিয়ামতের দিন] ততক্ষণ শাস্তি দিতে থাকবেন যতক্ষণ না সে এতে প্রাণ সঞ্চার করে, আর সে কখনোই তা করতে সমর্থ হবে না।”
[বুখারী:২২২৫; মুসলিম: ২১১০]

ইবনে মুকাতিল (র) এবং আবূ তালহা (রা) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, আমি রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি, যে ঘরে কুকুর থাকে আর প্রানীর ছবি থাকে সে ঘরে (রহমতের) ফিরিশতা প্রবেশ করেন না।
[সহীহ বুখারী, পঞ্চম খণ্ড, হাদিস নং ২৯৯৮ - ইফা]

আলী ইবনে আবদুল্লাহ (র) এবং আয়েশা (রা) থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম (তাবূক যুদ্ধের) সফর থেকে প্রত্যাগমন করলেন। আমি আমার ঘরে পাতলা কাপড়ের পর্দা টাঙ্গিয়েছিলাম। তাতে ছিল (প্রানীর) অনেকগুলো ছবি। রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন এটা দেখলেন, তখন তা ছিঁড়ে ফেললেন এবং বললেনঃ কিয়ামতের সে সব মানুষের সবচেয়ে কঠিন আযাব হবে, যারা আল্লাহ্র সৃষ্টির (প্রানীর) অনুরূপ তৈরি করবে। আয়েশা (রা) বলেন, এরপর আমরা তা দিয়ে একটি বা দু'টি বসার আসন তৈরি করি।
[সহীহ বুখারী, নবম খণ্ড, হাদিস নং ৫৫৩০ - ইফা]

সুতরাং উপরিউক্ত আলোচনা থেকে বলা যায় যেকোন প্রাণির ছবি তোলা, আঁকানো হারাম।
করেছেন (22 পয়েন্ট)
ক্ষেত্র বিশেষে কি ছবি তোলা যায়েজ আছে...?
যদি ছবি তোলা ক্ষেত্র বিশেষেও হারাম হয় তাইলে বর্তমান যুগে আমরা হজ্জ করতে পারবো না তো। কারন হজ্জ করতে গেলে ছবি দিতে হয়...?
করেছেন (495 পয়েন্ট)
ক্যামেরা দিয়ে ছবি তোলা সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা  পেলাম না
করেছেন (2,765 পয়েন্ট)
সাবিরুল ভাই বলেছেন দেখুন।
+1 টি পছন্দ
করেছেন (59 পয়েন্ট)
এ বিষয়ে অনেক মতভেদ আছে, তবে ছবি অঙ্কন এর বেপারে সবাই একমত যে এটা হারাম । মোবাইলে বা ডিজিটাল ডিভাইস দিয়ে ছবি তোলার বেপারে অনেক আলেম মনে করেন জায়েজ, আবার অনেকে মনে করেন হারাম । স্ব-স্ব পক্ষে যথেষ্ট হাদিস এবং যুক্তি আছে । তবে ছবি না তোলা যে উত্তম তাতে কারো দ্বিমত নেই ।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

3 টি উত্তর

358,872 টি প্রশ্ন

453,950 টি উত্তর

142,179 টি মন্তব্য

189,994 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...