বিস্ময় অ্যানসারস এ আপনাকে সুস্বাগতম। এখানে আপনি প্রশ্ন করতে পারবেন এবং বিস্ময় পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের নিকট থেকে উত্তর পেতে পারবেন। বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন...
81 জন দেখেছেন
"পবিত্রতা ও সালাত" বিভাগে করেছেন (4,426 পয়েন্ট)
পূনঃরায় খোলা করেছেন

1 উত্তর

+1 টি পছন্দ
করেছেন (7,619 পয়েন্ট)
নির্বাচিত করেছেন
 
সর্বোত্তম উত্তর
সালাতুল আওয়াবীন হচ্ছে আল্লাহকে অধিক স্বরণকারীদের সালাত।

অথবা, আওয়াবীনের সালাত চাশত সালাতের অপর নাম।

মহানবী (সাঃ) বলেন, চাশতের নামাজ হলো আওয়াবীনের নামাজ।

অবশ্য সাধারণভাবে নফল নামাজ যেভাবে আদায় করতে হয় ঠিক তেমনিভাবে আওয়াবীনের সালাত আদায় করা যায়। দুই দুই রাকাআত করে আওয়াবীনের নামাজ আদায় করা যায়। যেকোন সূরা দ্বারা এই নামাজ পড়া যায়। উভয় রাকাআতেই সূরা ফাতিহার পর অন্য সূরা মিলাতে হবে এবং আখেরী বৈঠক আত্তাহিয়্যাতু, দরুদ শরীফ ও দোয়ায়ে মাছূরা পড়ে সালাম ফিরাতে হবে।

মাগরিবের সালাতের পর ছয় রাকআত আওয়াবীন সালাত আদায়ের ফজিলত প্রসঙ্গেঃ

আবূ হুরাইরা (রাঃ) থেকে বর্ণিত। নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেনঃ যে ব্যক্তি মাগরিবের সালাতের পর ছয় রাকআত নফল সালাত পড়লো এবং তার মাঝখানে কোন মন্দ কথা বলেনি, তাকে বারো বছরের ইবাদাতের সম-পরিমাণ সওয়াব দান করা হলো।

(সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস নম্বরঃ ১১৬৭ হাদিসের মানঃ যঈফ)।

সম্পর্কিত প্রশ্নগুচ্ছ

312,562 টি প্রশ্ন

402,127 টি উত্তর

123,486 টি মন্তব্য

173,190 জন নিবন্ধিত সদস্য

বিস্ময় বাংলা ভাষায় সমস্যা সমাধানের একটি নির্ভরযোগ্য মাধ্যম। এখানে আপনি আপনার প্রশ্ন করার পাশাপাশি অন্যদের প্রশ্নে উত্তর প্রদান করে অবদান রাখতে পারেন অনলাইনে বিভিন্ন সমস্যার সমাধানের জন্য সবথেকে বড় এবং উন্মুক্ত তথ্যভাণ্ডার গড়ে তোলার কাজে।
...