মোহাম্মদ জাকারিয়া (@জুবায়েরনিলু)

প্রতি বছর দেশে কতজন বিসিএস ক্যাডার হন?

জুবায়েরনিলু
Jul 5, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

 প্রতিবছর কতজন বিসিএস ক্যাডার হবে তা নির্দিষ্ট নয়। তবে বিগত বছরের বিসিএস সার্কুলার পর্যালোচনা করে দেখা যাচ্ছে যে, প্রতি বিসিএসে সাধারণত দুই হাজারের মত বিসিএস ক্যাডার নিয়োগ করা হচ্ছে।

বোর্ড বই হারিয়ে গেলে কি করবো?

জুবায়েরনিলু
Jun 29, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

পিডিএফ বই প্রিন্ট করে ভালোভাবে বাঁধাই/সেলাই করে নিলে তা মূল বই এর মতো পড়া যাবে। সুতরাং পিডিএফ বইকে প্রিন্ট করে নিন।

তাছাড়া কিছু লাইব্রেরী আছে যারা পুরাতন বই ক্রয়/বিক্রয় করে। আপনি সেসব লাইব্রেরী থেকে পুরাতন বোর্ড বই কিনতে পারবেন।

সরকারি চাকুরির বয়সসীমা ৩০ বছর বলতে কি বুঝিয়েছে?

জুবায়েরনিলু
Jun 27, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

অর্থাৎ ১০/০৭/২০২০ ইং তারিখে যাদের বয়স ৩০ বছর অথবা ৩০ বছর এর কম থাকবে, কেবল তারা ঐ চাকুরিতে আবেদন করতে পারবে।

আপনার জন্ম তারিখ ২৮/০৬/১৯৯০ ইং। ১০/০৭/২০২০ ইং তারিখে আপনার বয়স হবে ৩০ বছর ১২ দিন।

যেহেতু ১০/০৭/২০২০ ইং তারিখে বয়স ৩০ বছরের চেয়ে বেশি হবে, তাই আপনি আবেদন করতে পারবেন না।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র বেসরকারি হাসপাতাল। এটি ঢাকা জেলার সাভারে অবস্থিত। 

পৃথিবী থেকে খালি চোখে শুক্র, বুধ, মঙ্গল ও বৃহস্পতি গ্রহ দেখা যায়।

তথ্যসূত্র: ভূগোল ও পরিবেশ (৯ম-১০ম শ্রেণি)

বাণিজ্য বিভাগ থেকে HSC পাস করা শিক্ষার্থীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ,ঘ,চ ইউনিটে ভর্তি আবেদন করতে পারবে।

আপনি গ ও ঘ ইউনিটে ভর্তি আবেদন করত পারবেন না। কারণ গ ও ঘ ইউনিটে ভর্তি আবেদন করার জন্য বাণিজ্য বিভাগের শিক্ষার্থীদের  SSC ও HSC উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে ৩.৫০ পয়েন্ট পেতে হবে মোট পয়েন্ট ৭.৫০ হতে হবে। যেহেতু SSC পরীক্ষায় ৩.৫০ এর কম পয়েন্ট পেয়েছেন, তাই HSC তে জিপিএ ৫.০০ পেলেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গ ও ঘ ইউনিটে ভর্তি আবেদন করতে পারবেন না।

আপনি HSC তে ৩.৫০ পয়েন্ট পেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চ ইউনিট অর্থাৎ চারুকলা অনুুুুষদে ভর্তি আবেদন করত পারবেন।

মনে করি, সংখ্যাটি= ক

প্রশ্নমতে,

    ক এর ৬০%=৫৮৮

বা, ক× ৬০/১০০=৫৮৮

বা, ৬০ক/১০০=৫৮৮

বা, ৬০ক=৫৮৮×১০০

বা, ৬০ক=৫৮৮০০

বা, ক= ৫৮৮০০/৬০

বা, ক= ৯৮০

অতএব সংখ্যাটি= ৯৮০

বিকল্প পদ্ধতি:

দেওয়া আছে,

  ৬০%= ৫৮৮

  ১% = ৫৮৮/৬০

১০০% = (৫৮৮×১০০)/৬০

        = ৯৮০

অতএব, সংখ্যাাটি= ৯৮০

HSC Admission 2020-21?

জুবায়েরনিলু
Jun 11, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে এইচএসসিতে ভর্তির তারিখ এখনও প্রকাশিত হয়নি।

আপনার ভবিষ্যৎ ইচ্ছা কি? ডাক্তার/ফার্মাসিস্ট/মাইক্রোবায়োলজিস্ট ইত্যাদি হওয়ার জন্য এইচএসসিতে জীববিজ্ঞান থাকা আবশ্যক। আপনার যদি ডাক্তার/ফার্মাসিস্ট/মাইক্রোবায়োলজিস্ট ইত্যাদি হওয়ার ইচ্ছা না থাকে তাহলে জীববিজ্ঞানের বদলে পরিসংখ্যান নিলে কোন সমস্যা হবে না।

  হ্যাঁ, ব্যবসা ও মানবিক শাখা থেকে এসএসসি পাশ করে ডিপ্লোমাতে ভর্তি হওয়া যাবে।

কলেজে ভর্তি বিষয়ক?

জুবায়েরনিলু
Jun 4, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

 সরকারি তিতুমীর কলেজে ইন্টার শাখা নেই। তাই সরকারি তিতুমীর কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবেন না।

কলেজ ভর্তি প্রসঙ্গ?

জুবায়েরনিলু
Jun 4, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

 আপনার মোট নম্বর কত? শুধু জিপিএ ৫.০০ থাকলেই সিলেট এমসি কলেজ চান্স হয়ে যাবে এটা নিশ্চিত করে বলা যাবে না। জিপিএ ৫.০০ এর পাশাপাশি ভালো নম্বর পেলে সিলেট এমসি কলেজ চান্স পাবেন।

SSC te 1ti subject fail ashche?

জুবায়েরনিলু
Jun 4, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

আমি যতটুকু জানি রোল নম্বর ও রেজিস্ট্রেশন নম্বর এই দুইটির মধ্যে যেকোনা একটি সঠিক হলে রেজাল্ট আসে। আপনি বলেছেন রেজিস্ট্রেশন নম্বর ভরাটে ভুল হয়েছে। তারমানে রোল নম্বর ভরাট সঠিক ছিল। তাই আমি মনে করি রেজিস্ট্রেশন নম্বর ভুল ভারাটের কারণে রেজাল্ট ফেল আসেনি। অন্য কোন কারণে ফেল আসছে। যা হোক, আপনি বোর্ড চ্যালেঞ্জ করুন। ভাগ্য ভালো হলে হয়তো পাসও করত পারেন।

(১) বুয়েট/কুয়েট/চুয়েট/রুয়েট এসএসসি পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক পয়েন্টের উপর কোন শর্ত দেয় না। তারা ভর্তি বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করে দেয় SSC পরীক্ষায় জিপিএ ৪.০০/৪.২৫/৪.৫০ ইত্যাদি থাকতে হবে।

(২) বুয়েট/কুয়েটে/চুয়েট/রুয়েট HSC পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক পয়েন্টের উপর শর্ত দেয়। 

যেহেতু বুয়েট/কুয়েট/চুয়েট/রুয়েট SSC পরীক্ষার পরীক্ষার বিষয়ভিত্তিক পয়েন্টের উপর কোন শর্ত দেয় না, সেহেতু আপনি বুয়েট/কুৃয়েটে/চুৃয়েট/রুয়েটে ভর্তি আবেদন করতে পারবেন।

(১) গুগল প্লে স্টোর থেকে বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করুন।

(২) আপানর বিকাশ নম্বর ও বিকাশ পাসওয়ার্ড দিয়ে লগ ইন করুন।

(৩) এরপর ইনবক্সে ক্লিক করুন।

(৪) এরপর  'লেনদেনসমূহ' তে ক্লিক করুন।

'লেনদেনসমূ' তে ক্লিক করলে দেখতে পাবেন কোন নম্বরে ২৫০০ টাকা সেন্ড মানি করা হয়েছে।

ঘুষ দিয়ে চাকুরি প্রসঙ্গে...?

জুবায়েরনিলু
Jun 3, 2020-এ প্রশ্ন করেছেন

মনে করুন কোন চাকুরিতে ১০ জন লোক নিয়োগ দেওয়া হবে। চাকুরির পরীক্ষায় আমি প্রথম হলাম। আমার কাছে ঘুষ চাওয়া হল। আমি ঘুষ না দিলে আমাকে চাকুরি না দিয়ে অযোগ্য কোন লোককে ঘুষের বিনিময়ে চাকুরি দেওয়া হবে। অর্থাৎ ঘুষ না দেওয়ার কারণে আমাকে প্রাপ্য অধিকার (চাকুরি) থেকে বঞ্চিত করা হবে। তাই বাধ্য হয়ে ঘুুুষ দিয়ে চাকুরিটা নিলাম।

খুব ভালো করে খেয়াল করুন, আমি কিন্তু ঘুষ দিয়ে অন্যের অধিকার (চাকুরি) হরণ করিনি। বরং ঘুষ দিয়ে নিজের অধিকার (চাকুরি) ধরে রেখেছি।

এমতাবস্থায় ঘুষ দেওয়া কি ইসলাম ধর্ম অনুযায়ী হারাম হবে?


আমি সরকারি পলিটেকনিকইনস্টিটিউট এ ভর্তি হতে চাই?

জুবায়েরনিলু
Jun 3, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

এসএসসিতে জিপিএ ৫.০০ পেয়েছেন। এই পয়েন্ট দিয়ে রংপুর সরকারি পলিটেনিক চান্স পেয়ে যাবেন।

সরকারি পলিটেনিকে ইন্সটিটিউটে চার বছরে পড়াশোনর খরচ ৫০ হাজার টাকারর মতো হবে।

আপনার স্যারেরা কলেজে আবেদন করে রাখবে। আপনিও রংপুর সরকারি পলিটেনিকে আবেদন করে রাখুন। পলিটেকনিক ভর্তি হওয়ার জন্য কিছু কাগজপত্র দরকার যেমন মার্কসিট। স্যাররা আপনাকে কাগজপত্র দিতে চইবে না। আপনি অভিভাবক নিয়ে গিয়ে স্যারদের সাথে ভালোভাবে কথা বলুন। আশা করি সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।


টেকনিক্যাল কলেজ সম্পর্কে জানতে চাই ।?

জুবায়েরনিলু
Jun 3, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

(১) বর্তমানে সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং  চালু আছে। সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজে ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ে সরাসরি ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার হতে পারবেন। 

(২) টেকনিক্যাল কলেজে গ্রুপ আছে কিনা আমার জানা নেই।

(৩) ৩.৮৯ পয়েন্ট দিয়ে কম্পিউটার সাবজেক্টে চান্স পেয়ে যাবেন এটা নিশ্চিত করে কেউ বলতে পারবে না। আপনি আবেদন করুন। ভাগ্য ভালো হলে চান্স পেয়ে যাবেন।

  

 আপনার কাছে যেটাতে পড়তে ভালো লাগে সেটাতে পড়ুন। 

মনে করুন আপনার কাছে জেনারল ভালো লাগে। কিন্তু আমি আপনাকে টেকনিক্যালে পড়ার পরামর্শ দিলাম। আপনি আমার পরামর্শ অনুসারে নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে গিয়ে টেকনিক্যালে ভর্তি হলেন। নিজের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ভর্তি হওয়ার কারণে আপনার কাছে টেকনিক্যালে পড়তে ভালো লাগবে না।

তাই ভর্তি হওয়ার ক্ষেত্রে নিজের পছন্দকে গুরুত্ব দিন।

ছবিতে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার নিয়মাবলী দেওয়া আছে। ছবিতে দেওয়া নিয়মানুসারে বোর্ড চ্যালেঞ্জ করুন। নিজের কাছে টেলিটক প্রিপেইড সিম না থাকলে নিকটস্থ কম্পিউটার দোকানে গিয়েও বোর্ড চ্যালেঞ্জ করতে পারবেন।

বোর্ড চ্যালেঞ্জ করে পাস আসলে তো ভাল। বোর্ড চ্যালেঞ্জ করার পরও ফেল আসলে আগামী বছর আবার গণিত বিষয়ে পরীক্ষা দিতে হবে।

ভর্তি পরিক্ষার জন্য সহযোগিতা?

জুবায়েরনিলু
Jun 3, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

দাখিলে Golden A+ পেয়েছেন।  এটা খুব ভালো রেজাল্ট। এই রেজাল্ট দিয়ে বাংলাদেশেরর যেকোনা কলেজে ভর্তি আবেদন করতে পারবেন। ভালো রেজাল্টেরর কারণে যে কলেজ চয়েজ দিবেন সে কলেজে ভর্তি হতে পারবেন ইনশাআল্লাহ।

আপনি চট্টগ্রামের সাধারণ/মধ্যম মানের বেসরকারি কলেজে মানবিক বিভাগে আবেদন করুন। তাহলে চান্স পাবেন ইনশাআল্লাহ।

  • জিপিএ ২.১৭ দিয়ে সরকারি কলেজে চান্স পাওয়া যাবে না। 
  • জিপিএ ২.১৭ দিয়ে ভালো মানের বেসরকারি কলেজে চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা নেই।
জিপিএ ৪.১৭ দিয়ে জেলা/বিভাগীয় শহরে অবস্থিত সরকারি কলেজে বিজ্ঞান বিভাগে চান্স পাবেন না। জিপিএ ৪.১৭ দিয়ে উপজেলা/গ্রাম পর্যায়ে অবস্থিত সরকারি কলেজে বিজ্ঞান বিভাগে চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা আছে। জিপিএ ৪.১৭ দিয়ে ভালো বেসরকারি কলেজে ভর্তি হতে পারবেন ইনশাআল্লাহ।

সিলেট এমসি কলেজে শুধু বিজ্ঞান বিভাগ আছে। সিলেট এমসি কলেজে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি আবেদন করার জন্য জিপিএ ৫.০০ থাকতে হবে।

জিপিএ ৩.৬১ দিয়ে সরকারি ডিপ্লোমাতে চান্স পাওয়ার সম্ভাবনা খুব কম।

তবে জিপিএ ৩.৬১ দিয়ে বেসরকারি ডিপ্লোমাতে চান্স পাবেন।

সিভিল/মেকানিক্যাল/ইলেকট্রিক্যাল ইত্যাদি সাবজেক্টগুলো ভালো হবে।

নরসিংদী সরকারি কলেজে মানবিক বিভাগে ভর্তি আবেদন করতে ৩.২৫ পয়েন্ট লাগবে।

নরসিংদী সরকারি কলেজে চান্স পাওয়া নির্ভর করবে ভর্তি আবেদনকারীদের পয়েন্ট, প্রাপ্ত নম্বর ইত্যাদির ভিত্তিতে তৈরিকৃত মেধাতালিকার উপর।


 এটা নির্দিষ্ট করে বলা সম্ভব নয়। কারণ, ভর্তি আবেদন করার জন্য একেক বিশ্ববিদ্যালয় একেক রকম পয়েন্ট চেয়ে থাকে।

তাছাড়া ভর্তি আবেদন করার জন্য সায়েন্স, আর্টস, কমার্সের আলাদা পয়েন্ট চাওয়া হয়।

তবে এতটুকু বলতে পারি, 

(১) SSC ও HSC উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে ৩.৫০ করে পেলে বাংলাদেশের বেশিরভাগ সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবেন।

(২) SSC ও HSC উভয় পরীক্ষায় কমপক্ষে ৩.২৫ করে পেলেও কিছুকিছু সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দেওয়া যায়।

(৩) সাধারণত SSC ও HSC উভয় পরীক্ষার যেকোনা একটিতে ৩.০০ এর নিচে পয়েন্ট থাকলে সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দেওয়া যায় না।

আবারও বলছি, কত পয়েন্ট থাকলে ভর্তির পরীক্ষা দিতে পারবেন সেটা বিশ্ববিদ্যালয় ও গ্রুপ অনুযায়ী বিভিন্ন রকমের হয়ে থাকে।


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কমার্স থেকে ভর্তি আবেদন করতে মোট ৭.৫০ পয়েন্ট লাগে। SSC তে ৩.৯৮ পয়েন্ট পেয়েছেন। অর্থাৎ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি আবেদন করার জন্য HSC তে আপনাকে কমপক্ষে ৩.৫২ পয়েন্ট পেতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা দিয়ে চান্স পেতে হয়। ভর্তি পরীক্ষার নম্বর এর সাথে SSC ও HSC পরীক্ষার পয়েন্ট এর নম্বর যোগ করে মেধা তালিকা তৈরি করা হয়। সুতরাং আপনার পয়েন্ট যত বেশি হবে, চান্স পাওয়া তত সহজ হয়ে যাবে। তাই HSC তে ভালো পয়েন্ট তোলার চেষ্টা করুন।

এবারে কলেজ এ ভর্তি কত তারিখ থেকে হবে?

জুবায়েরনিলু
May 31, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের কলেজে ভর্তির তারিখ এখনও প্রকাশিত হয়নি।

বছর গ্যাপ দিয়ে ভার্সিটি ভর্তি।?

জুবায়েরনিলু
May 31, 2020-এ উত্তর দিয়েছেন

২০১৯ সালে SSC পাস করেছেন। এখন, ২০২১ সালে HSC পরীক্ষা না দিয়ে ২০২২ সালে HSC পরীক্ষা দিয়ে ২০২২ সালে দেশের যেকোনো পাবলিক ভার্সিটিতে ভর্তি পরীক্ষা দিতে পারবেন।

Loading...