user-avatar

কবিতাখানম

◯ কবিতাখানম

কবিতাখানম এর সম্পর্কে
যোগ্যতা ও হাইলাইট
পুরুষ
Unspecified
Unspecified
প্রশ্ন-উত্তর সমূহ 109.64k বার দেখা হয়েছে এই মাসে 1.33k বার
৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পড়ে যে চাকরি সেটা আয়া বুয়া পিওন ঝাড়ুদার এরকম কিছু চাকরি পাওয়া যায়,তাও সহজে পাওয়াও যাবে না বর্তমানে।তার থেকে আপনি নিজে বাড়িতেই কিছু করেন। যেমন- সেলাইএর কাজ, বুটিক এর কাজ,ছোট ছোট খামার করতে পারেন। নিজে চিন্তা করে দেখেন আপনার পরিবেশে আপনি কি করতে পারবেন। আপনি যা ভাল করতে পারেন সেটা দিয়ে শুরু করেন দেখবেন ভাল টা পাবেন। আল্লাহ কখনো নিরাশ করে না  মনে রাখবেন। 
চুল গজানোর জন্য কাস্টার অয়েল এর সাথে নারকেল তেল মিশিয়ে সপ্তাহে দুইদিন ব্যবহার করতে পারেন।আর পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। এতে নতুন চুল গজানো, চুল পড়ারোধ,চুল লম্বা  হতে পারে। কিন্তু একমাসের মধ্যে কাজ হবে কিনা সেটা জানিনা। 
এক সেট  সৃজনশীল  আসবে আর কিছু ঠিক প্রশ্ন ।

রিসালাত কাকে বলে?

কবিতাখানম
Oct 6, 09:09 AM

নবি-রাসুলের কাজ বা দায়িত্বকে রিসালাত বলে।

ফর্সা হওয়ার উপায় কী?

কবিতাখানম
Oct 5, 09:47 AM
মানুষ সুন্দরের পুজারী।তাই সর্বদা সুন্দর থাকা বা হওয়ার চেষ্টা আমরা করি।প্রত্যেক মানুষ তার স্থানে সে সুন্দর। বর্তমানে অধিকাংশ মানুষ ফর্সা হতে চায়। বাজারে কিনতে পাওয়া বিভিন্ন ক্রিম মেখে তাই ফর্সাও হয়। কিন্তু সেটা আমাদের জন্য যে  কতটা ক্ষতিকর তা আমরা ভাবতেও পারি না। আমাদের শরীরটা কালো নাকি ফর্সা নাকি শ্যামলা সেটা শরীরে থাকা কোষের কারণে হয়।আমাদের শরীরে কোলাজেন নামক এক ধরনের কোষ আছে।কোলাজেন  ত্বক ফর্সা ও মসৃণ  রাখে। যখন এই কোষ কমতে থাকে তখন ত্বক তার সৌন্দর্য  হারায়।আর যখন এই কোষ পর্যাপ্ত  পরিমানে থাকে তখন  ত্বক ফর্সা মসৃণ  থাকে। তাই ফর্সা হতে চাইলে আগে কোলাজেন এর কার্যক্রম বাড়াতে হবে। তাহলে শুধু মুখই না সারা শরীর ফর্সা হবে।তাও কোন ক্ষতি ছাড়াই । নিজেকে সুন্দর ফর্সা করতে হলে নিম্নের কাজ গুলো করতে হবে। ১. পর্যাপ্ত  ঘুম না হলে ত্বকের  কোষ ভারসাম্যহীন হয়ে যায়।ও ত্বকে রাত জাগার ছাপ পড়ে, খুব দ্রুত ত্বক তার সৌন্দর্য  হারায় ।তাই ঘুমাতে হবে  পর্যাপ্ত পরিমানে। ২. সিগারেট ও মাদক সেবন থেকে দুরে থাকতে হবে।সিগারেট এ রয়েছে নিকোটিন যা কোলাজেন কোষ এর ক্ষতি করে। ৩. নিয়মিত ও পর্যাপ্ত শরীর চর্চা  করতে হবে। নিয়মিত শরীর  চর্চা করলে প্রচুর ঘাম বের হবে, আর ঘামের সাথে বের হয় বর্জ্য। যার ফলে শরীরের কোষ গুলোর ভারসাম্য ঠিক থাকে। এবং ত্বক সুন্দর রাখে।  ৪. নিয়মিত ও পুষ্টিকর খাবার খেতে হবে। যেসব খাবার এ কোলাজেন থাকে সে গুলো বেশি খেতে হবে। যেমন- ডিম, দুধ, টক দই,কলা, আপেল, টমেটো  ইত্যাদি। ৫. ত্বক ফর্সা করতে প্রসাধনীর ব্যবহার ও করতে পারেন। তবে সেটা হতে হবে উপযুক্ত ও নির্দিষ্ট  পরিমানে। এজন্য ব্যবহার করতে হবে -পেপটাইট,ভিটামিন এ ও সি, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট, আলফা ও বিটা হাইড্রোক্সি অ্যাসিড  ইত্যাদি যেগুলো কোলাজেন  তৈরিতে সাহায্য করে।
হাত একটা নাই তবুও প্রশ্ন করেছেন, কারণ আপনার একটা হাত আছে তাই।আর যাদের দুইটা হাত নাই তারা আপনার মত প্রশ্ন করতে পারে না। তাই এই তুলনায় আপনি অনেক ভাল আছেন। পাপী কিনা নিজের মন বলে দেয়।কিন্তু ভেবে দেখেছেন একজন পাপী হয়েও বাঁচিয়ে রেখে ছে  সৃষ্টিকর্তা   আপনাকে। আর আপনার মরতে মন চাই,, ,? এই জগতের অনেক কিছুই দেখেছেন, দুই হাতে করেছেন, ভাল সময় ও পার করেছেন । আজ একটা হাতের জন্য নিজে কে অসহায় মনে করছেন।  আমার এক বন্ধুর জন্ম থেকেই একটা হাত ছিল না, কিন্তু সে সব করত, কখনো বুঝতে দিত না ,সে আমাদের থেকে আলাদা । এটা আপনি আপনার অনুপ্রেরণার জন্য নেন যে,সবাই দুই হাতে করবে আর আপনি এক হাতে করবেন। আপনার থেকে নিচে যারা আছে তাদের সাথে তুলনা করেন,তাহলে ভাল থাকবেন। 
হ্যা যেতে পারবেন, টেনেটুনে আপনার এস এস সি ও এইচ এস সি রেজাল্ট এ। তবে ,,ielts এ আপনার ৮/৯ থাকতে হবে। তারপর আশা করা যায় ।
ঠোট দুটো অনেক সুন্দর ,সত্যি বলছি। তবে এটা ভাল হয়ে যাবে মনে হচ্ছে ,যদি নিয়মিত ঠোটের যত্ন নেন তবে। সাদা রং এর টুথপেস্ট দিয়ে ৫ মিনিট ম্যাসেজ করবেন, প্রথমত রক্ত বের হবে হয়তো আপনার ক্ষেত্রে ।তারপর অলিভ ওয়েল এর তেল দিয়ে ম্যাসেজ করবেন। আর কখনো জিহ্ববা দিয়ে ঠোট ভিজাবেন না।আর ভিটামিন যুক্ত খাবার খাবেন ।এভাবে নিজের যত্ন নিবেন, যতদিন করবেন ভাল থাকবেন। 
আল-কুরান, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ  কিতাব।যার  পরিবর্তন হবে না।
স্থান ,কলেজ, সরকারি- বেসরকারি বুঝে  আর ছাত্র -ছাত্রীর রেজাল্ট অনুযায়ী   উপবৃতি দেওয়া হয় ।তবে দুই বছরে আনুমানিক ৫ হাজারের মত দেয়। সব কিছু মিলিয়ে। 
প্রথমেই আপনার কথা ঠিক করতে হবে। কথার মধ্যে কোন আঞ্চলিক ভাষা আসবে না।আর বাংলা  সব গুলো  বর্ণমালার সঠিক উচ্চারণ জানতে হবে। সাথে বিরামচিহ্ন এর সঠিক ব্যবহার করতে হবে। আর কথা বলার ভজ্ঞি সুন্দর করতে হবে ।  আমি জানিনা আপনি কি পড়েন ,তবে একটা ভাল সাফল্য এর স্থানে যেতে গেলে প্রত্যেক মানুষের উচিত শুদ্ধ উচ্চারণ করে কথা বলা। কারণ চাকরি ক্ষেত্রে মুখের ভাষা টা বেশি দেখে। আরজে, সংবাদ উপস্থাপিকা , উপস্থাপক  এসব এ মুখের সুন্দর কথা বলাটা দেখে। ও আর যোগ্যতা ইন্টার পাস হলেই হবে। আর তারপর যে যে সময় হয় ।
হ্যা, খোলা থাকে শুক্রবারে।

নোনা ইলিশ রান্নার সহজ  দুইটা রেসিপি আমি বলছি আপনাকে। একটা হচ্ছে বেগুনের সাথে নোনা ইলিশ রান্না করতে পারেন। তারজন্য আপনি নোনা ইলিশ গুলো ছোট ছোট কিউব করে টুকরা করবেন ।তারপর পানিতে কিছু সময় ভিজিয়ে রাখবেন। বেগুন ও আপনি মাঝারি সাইজ এর কিউব করে কাটবেন। গরম তেল এ রুসুন কুচি, পেয়াজ কুচি ভাজা হলে তাতে কেটে রাখা নোনা ইলিশ গুলো দিয়ে দেবেন হালকা ভাজা হলে তাতে ঝালের গুড়া, ধনে গুড়া, হলুদ পরিমান মত দেবেন।এভাবে সব মিশিয়ে যখন তেল ফুটে যাবে তখন বেগুন দিয়ে ভাল করে কসিয়ে নেবেন। পরে পরিমান মত পানি দিয়ে রান্না করবেন কিছু সময়। আর লবণ মাছের মধ্যে ই থাকে তাই পরে চেকে দেখে লবণ দিবেন যদি দরকার হয়।


আর আরেক টা হল নোনা ইলিশ ভুনা।
আপনি আপনার পছন্দ মত মাছের পিচ করে নিতে পারেন। পিচ করা মাছ পানিতে ভিজিয়ে রাখবেন। তারপর গরম তেলে পরিমান মত রসুন কুচি ভাজবেন, পুরো ভাজা না হতেই পেয়াজ এর কুচি দেবেন, ভুনা করতে একটু বেশিই দিতে হবে পেয়াজ। ভাজা হলে তাতে নোনা ইলিশ কাটা দিয়ে নাড়তে থাকেন। পরে একেক করে ঝালের গুড়া, হলুদ, ধনে গুড়া, গোল মরিচের গুড়া দিয়ে নাড়িয়ে দেবেন।
পরে পানি দিয়ে পাচ মিনিট এর মত রান্না করুন। এক্ষেত্রে ও লবণ দেখে তারপর লবণ দেবেন।
এরপর দুইটা রেসিপি ই সুন্দর করে পরিবেশন । আশা করি ভাল হবে। 

একটি শিক্ষনীয় ঘটনা?

কবিতাখানম
Sep 15, 05:36 PM
এক মহিলা একটা অজগর সাপ পুষতেন। সাপটাও ওই মহিলাকে অসম্ভব ভালবাসতো। অজগরটা লম্বায় ৪ মিটার এবং বেশ স্বাস্থ্যবান ছিল। হঠাৎ করেই একদিন আদরের অজগরটি খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করে দিলো। এভাবে কয়েক সপ্তাহ চলে গেল, সাপ কিছুই খায় না। আদরের সাপের এমন অবস্থায় মহিলা দুশ্চিন্তায় পড়ে গেলেন। উপায়-বুদ্ধি না পেয়ে শেষমেশ সাপটাকে তিনি ডাক্তারের কাছে নিয়ে গেলেন। ডাক্তার মনযোগ দিয়ে সব শুনে জিজ্ঞেস করলেন, ‘সাপটা কি রাতে আপনার সাথে ঘুমায়?’ মহিলা উত্তর দিলেন, হ্যাঁ। ডাক্তার, ‘ঘুমানোর সময় এটা কি আস্তে আস্তে আপনার কাছে ঘেঁষে?’ ‘হ্যাঁ’–মহিলার উত্তর। ডাক্তার, ‘তারপর আস্তে আস্তে আপনাকে চারপাশে পেঁচিয়ে ধরে?’ মহিলা বিস্মিত হলেন এবং জবাব দিলেন। তখন চিকিৎসক বললেন, ‘ম্যাডাম, সাপটি আপনাকে জড়িয়ে এবং চারপাশ থেকে পেঁচিয়ে ধরে। কারণ এটা আপনার মাপ নিচ্ছে। নিজেকে প্রস্তুত করছে, আপনাকে আক্রমণ করার জন্য। আর হ্যাঁ, সে খাওয়া-দাওয়া বন্ধ করেছে যথেষ্ট জায়গা খালি করতে, যাতে সহজেই আপনাকে হজম করতে পারে। এই গল্পের একটা মোরাল আছে–আপনার চারপাশে হয়ত এমন অনেকেই আছেন, যাদের আপনি কাছের মানুষ ভাবেন, যাদের দেখে মনে হয় আপনাকে তারা অসম্ভব ভালবাসেন। কিন্তু আপনি জানেন না, আপনার ক্ষতিই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য।

Professor' s Job solution   বই টা ভাল।

এই বই টা পড়লে সব ধরনের চাকরি প্রস্তুতি মোটামুটি  ভাল হবে।এর সাথে যদি কারেন্ট  অ্যাফেয়ার্স  পড়া হয় তাহলে আরো ভাল।চাকরির জন্য প্রতি মাসে এই বই এর গুরুত্ত অনেক।

নোকিয়া X6 এর দাম কত?

কবিতাখানম
Sep 14, 08:27 AM

নোকিয়া এক্স-৬, ফোনটিতে আছে স্ন্যাপড্রাগন ৬৩৬ অক্টোকোর প্রসেসর, ফোর জিবি র্যাম, ৬৪ জিবি রোম, ডুয়াল ক্যামেরা, ৫.৮ ইঞ্চির ডিসপ্লে, ৩০৬০-এম এএইচ ব্যাটারি। স্ক্রিনের মাথায় ‘নচ’, ওয়াইডস্ক্রিন ডিসপ্লে (১৯:৯) এবং ফুল এইচডি-র থেকেও বেশি পিক্সেল (২২৮০* ১০৮০)। স্ন্যাপড্রাগন ৬৩৬ নতুন প্রসেসর। এই প্রসেসর সাধারণ ব্যবহারকারীদের জন্যে যথেষ্ট। বাংলাদেশে এর মুল্য ২৫ হাজার টাকা প্রায়।

প্রাইমারী শিক্ষক নিয়োগ পরিক্ষার জন্য আপনি   Professor' s Job solution   বই পড়তে পারেন। আর কারেন্ট  অ্যাফেয়ার্স  বই প্রতি মাসে পড়বেন।
আপনি মুসলিম সন্তান তাই আপনাকে বলছি আপনি রোজা রাখুন।এরকম অবস্থায় আল্লাহর ইবাদতই যথেষ্ট। চিন্তা ভাবনা গুলো ভাল করবেন,মেয়েদের দিকে ভাল মনোভাব নিয়ে তাকাবেন। আশা করি আপনার সমস্যার সমাধান হবে।
আপনি জয়কলি এর বাংলা বিচিত্রা, ইংরেজি  এর বই পড়ুন। আর আপনার ক্লাস বই গুলো পুনরায়  পড়ুন। আমিও আপনার মতো চেষ্টা করছি। 
কসমেটিক্স এর ব্যবসায় লাভ বেশি। যদি আপনার দোকান সবার কাছে পরিচিত হয় তবে আরো লাভ জনক। সবদিক থেকে কসমেটিক্সই ভাল।

বন্ধুকে কি গিফট দিবো?

কবিতাখানম
Jul 14, 05:13 AM
আপনি সুন্দর দেখে টি সেট  উপহার দিতে পারেন। যেটা পরিবারের কাজে আসে।আর এটা আপনার বাজেটের মধ্যে ই থাকবে। 

মোবাইল কিনব হেল্প করুন?

কবিতাখানম
Jul 13, 07:54 AM

ওয়ালটন প্রিমো আরএইচ ৩ একটি মার্জিত, আধুনিক স্মার্টফোন। এই ফোনটিতে 4জি নেটওয়ার্ক সাপোর্টসহ আরো পাচ্ছেন ২ জিবি র‍্যাম, ১৬ জিবি রম, ৮+৮ এমপি ক্যামেরা, ৫ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে, ওটিজি, ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর সাথে আরো অনেক কিছু। ২৬০০ মিলি আম্প্যায়ার ব্যাটারি । দাম ৯,৯৯০ টাকা।

আরো ফোন সম্পরকে বিস্তারিত এখানে দেখুন।

আমাদের শরীরের অনেক কিছুই হরমোন জনিত কারণে হয়ে থাকে।তার মধ্যে শরীরের লোম। কারো কম,কারো বা বেশি।যদি বেশি থেকে আর বেশি বাড়তে  থাকে তখন এটা বলা যায় যে, হরমোন এর সমস্যা। এখানে আপনার বলা কথায় মনে হচ্ছে আপনার এটা হরমোন জনিত সমস্যা। তাই আপনি দ্রুত ডাক্তার দেখান। আর শরীরের লোম চিরতরে বিদায় করা যায় না, সম্ভবত। 
মুখের কাটা দাগ যদি অনেক ছটো বয়স থেকে হয়ে থাকে বা বেশি গভীর হয় কাটার পরিমান তাহলে দাগ দুর হবে না। যদি সামান্য হয় তবে মধু +লেবুর রস মিশিয়ে    মুখে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন।এভাবে ১ সপ্তাহ করলে মুখের দাগ দুর হয়। আর রাতে বেটনোভেট এন ক্রিমটা ব্যবহার করতে পারেন।